1. admin@bangla24bdnews.com : b24bdnews :
  2. robinmzamin@gmail.com : mehrab hossain provat : mehrab hossain provat
  3. maualh4013@gmail.com : md aual hosen : Md. Aual Hosen
  4. tanvirahmedtonmoy1987@gmail.com : shuvo khan : shuvo khan
মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর ২০২০, ১১:১১ অপরাহ্ন

আজ আসলেই কি পাকিস্তান সফরের জট খুলবে : পাপন

স্টাফ রিপোর্টার (বাংলা ২৪ বিডি নিউজ):
  • আপডেট সময় : রবিবার, ১২ জানুয়ারী, ২০২০
  • ১৩৮

ভাবা হচ্ছে, আজই সব সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে। ধারণা করা হচ্ছে, জাতীয় দলের পাকিস্তান সফরের ভাগ্য নির্ধারণ হবে রোববার বিসিবি বোর্ড পরিচালক পর্ষদের সভায়। আজ বিকাল ৩ টায় বিসিবি পরিচালকদের সভা।

মনে করা হচ্ছে পাকিস্তান সফর হবে কি হবে না-তা আজ বোর্ড সভাতেই ঠিক করা হবে। যদিও বোর্ড থেকে এমন কথা বলা হয়নি যে ১২ জানুয়ারির বোর্ড পরিচালক পর্ষদের সভাতেই পাকিস্তান সফরের ভাগ্য নির্ধারিত হবে।

বিসিবি প্রধান নাজমুল হাসান পাপন কিংবা প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দীন চৌধুরী সুজনের কেউ মুখ ফুটে অমন কথা বলেননি। তবে যেহেতু হাতে সময় কম। পিসিবি জানুয়ারির তৃতীয় সপ্তাহেই সফর শুরুর চিন্তা ভাবনা করে পূর্ব প্রস্তুতিও নিয়ে রেখেছে, তাই ধরেই নেয়া যায় সফর হলে বাংলাদেশ জাতীয় দলকে অতি অবশ্যই বিপিএলের ফাইনালের (১৭ জানুয়ারি) এক বা দুদিন পরই পাকিস্তান যেতে হবে।

এখন পাকিস্তান গেলে প্রথমে দল নির্বাচন এবং দীর্ঘ বিপিএল খেলার পর ক্রিকেটারদের ব্যক্তিগত প্রস্তুতির বিষয়টিও আছে। সব মিলে বিসিবিও তাগিদ অনুভব করছে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব পাকিস্তান সফরের বিষয়টি চূড়ান্ত করতে। মোদ্দা কথা, পাকিস্তান গেলে আজকালের ভেতর সব কিছু চূড়ান্ত করার তাড়াও আছে।

তাই আজ যেহেতু বোর্ড সভা, তাই অনেকেরই ধারণা- এ বোর্ড মিটিংয়েই সব চূড়ান্ত হয়ে যাবে। এখন পর্যন্ত পরিবেশ-প্রেক্ষাপট দেখেও এমনটাই মনে হচ্ছে। কিন্তু আসলেই কি তাই? সত্যিই কি আজকের বিসিবি পরিচালক পর্ষদ সভায় পাকিস্তান সফরের ভাগ্য নির্ধারিত হবে? বিষয়টি কি সত্যিই অমন পর্যায়ে আছে?

ব্যাপারটা যদি একতরফা হতো, তাহলে হয়তো নিশ্চিত করেই বলে দেয়া যেতো যে, বিসিবি আজই ‘হ্যাঁ’ কিংবা ‘না’ বলে দেবে। বিষয়টি আসলে তেমন নয়।

জানা গেছে-নানা প্রস্তাব, পাল্টা প্রস্তাব ও কথোপকথনের পরও দুই বোর্ড অনড় নিজ নিজ অবস্থানে। বিসিবির এক ও শেষ কথা, টেস্ট কিংবা টি-টোয়েন্টি সিরিজ বুঝি না, দীর্ঘ সময়ের জন্য জাতীয় দল পাঠানো সম্ভব নয়। অর্থাৎ বাংলাদেশ দল পাকিস্তান গেলেও সেটা হবে অল্প কদিনের জন্য। সর্বোচ্চ সপ্তাহ খানেক। এর বেশি পাকিস্তানে থাকার কোনো ইচ্ছে নেই বিসিবির।

আজ (রোববার) সকালেও বিসিবি মুখপাত্র এবং মিডিয়া কমিটি চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস বাংলা২৪ বিডি নিউজকে বলেছেন, ‘আমরা আমাদের পূর্বের অবস্থানেই আছি। টেস্ট আর টি-টোয়েন্টি বুঝি না, আমরা কোনোভাবেই পাকিস্তানে ৬/৭ দিনের বেশি থাকতে চাই না। সেটা বারবার বহুবার বলা হয়েছে পিসিবিতে। এখন পিসিবিই ঠিক করবে তারা মানবে কি মানবে না।’

অর্থাৎ বিসিবি নীতিগতভাবে পাকিস্তানে বেশি সময় থাকতে নারাজ। বিসিবির ধারণা ও বিশ্বাস, বেশি সময় থাকার অর্থই হলো নিরাপত্তা হুমকি, সংশয়-শঙ্কা বেড়ে যাওয়া। সপ্তাহখানেকের অবস্থানের চেয়ে ১৫/১৭ দিন থাকায় ঝুঁকি ও নিরাপত্তা নিয়ে চিন্তা অবশ্যই বেশি। পাশাপাশি অতি মাত্রায় নিরাপত্তা বেষ্টনীতে ক্রিকেটারদের মানসিক স্থিরতাও কমে যেতে পারে।

কোথাও যাওয়া যাবে না, হোটেল আর মাঠ। সেটাও আবার কড়া নিরাপত্তা বেষ্টনীতে। সর্বক্ষণ অস্ত্রধারী সামরিক লোকজন আশপাশে থাকবে। সেটা একটা খাঁচায় বদ্ধ থাকার মতো অবস্থার উদ্রেক ঘটাতে পারে। এসব চিন্তা করেই বিসিবি বদ্ধপরিকর যে, কিছুতেই ৭/৮ দিনের বেশি পাকিস্তানে অবস্থান নয়। আর তাই বিসিবির পক্ষ থেকে শেষ প্রস্তাব দেয়া হয়েছে, এক টেস্ট আর এক টি-টোয়েন্টি ম্যাচের।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের ধারণা ও বিশ্বাস, সেটা ঐ সময়ের ভেতরে শেষ করা যাবে। টেস্ট শুরুর ৪৮ ঘন্টা আগে পাকিস্তান যাওয়া আর ৫ দিনের ম্যাচ শেষে একদিন বিরতি দিয়ে টি-টোয়েন্টি; সব মিলে সর্বোচ্চ ৮ দিন থাকা। এভাবেই সফরসূচি চূড়ান্ত করার ইচ্ছে বিসিবির। এখন পিসিবি তা মানলেই কেবল সফর হবে। অন্যথায় নয়।

এখন প্রশ্ন হচ্ছে, পিসিবি কি তাদের চূড়ান্ত মত দিয়েছে? পাকিস্তানের ক্রিকেট বোর্ড কর্তারা শুরু থেকে একগুয়ে। তারা যে কোনো মূল্যে বাংলাদেশকে এক সাথে দুই টেস্ট খেলানোর জন্য পীড়াপীড়ি করছে। দুই টেস্ট খেলতে হলে অন্তত ১৫ দিন পাকিস্তানে থাকতে হবে। যা বিসিবি কোনোভাবেই মানছে না। বোর্ডের সর্বোচ্চ নির্ভরযোগ্য সূত্র নিশ্চিত করেছে, দুই টেস্টের সিরিজ একসাথে খেলতে পাকিস্তান দল পাঠানো হবে না।

বাংলাদেশ তাতে অসম্মতি জানিয়েই দুই টেস্টের বদলে এক টেস্ট এবং সাথে এক টি-টোয়েন্টি খেলার প্রস্তাব দিয়েছে। এখন পিসিবি সে প্রস্তাবে রাজি কি না, তা না জানা পর্যন্ত বিসিবির পক্ষে পাকিস্তান যাওয়া কিংবা সফর বাতিল করা কঠিন।

তাই আসল হচ্ছে পিসিবির সর্বশেষ অবস্থান জানা। পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড কর্তারা কি বিসিবির সত্যিকার মনোভাব বুঝে তাদের অল্প কদিনে এক টেস্ট আর এক টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলার আমন্ত্রণ জানিয়ে সফরসূচি চূড়ান্ত করবে? যদি করে, তবেই কেবল আজকের সভায় হ্যাঁ-বোধক সিদ্ধান্ত আসবে।

আর যদি পিসিবি নেতিবাচক জবাব দেয়, তাহলে বিসিবির সভায় পাকিস্তান সফর বাতিলের সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। কিন্তু পিসিবি যদি ‘হ্যাঁঁ-না’ কিছুই না জানায়, তাহলে কি হবে? কাজেই আসলে বল এখন পিসিবির কোর্টে। পিসিবি সিদ্ধান্ত জানালেই কেবল বিসিবি নিজেদের সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত করতে পারবে। অন্যথায় নয়।

ফেসবুকে আমরা

এ বিভাগের আরও সংবাদ
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব www.bangla24bdnews.com কর্তৃক সংরক্ষিত
Customized By NewsSmart