1. admin@bangla24bdnews.com : b24bdnews :
  2. robinmzamin@gmail.com : mehrab hossain provat : mehrab hossain provat
  3. maualh4013@gmail.com : md aual hosen : Md. Aual Hosen
  4. tanvirahmedtonmoy1987@gmail.com : shuvo khan : shuvo khan
সোমবার, ৩০ নভেম্বর ২০২০, ০৫:১২ অপরাহ্ন

পটুয়াখালীতে নৃসংশ হত্যাকাণ্ড : হাত-পা চেপে ধরে মা, গলা কাটে ছেলে

বাংলা ২৪ বিডি নিউজ:
  • আপডেট সময় : বৃহস্পতিবার, ১৯ নভেম্বর, ২০২০
  • ৭৬
পটুয়াখালীতে নৃসংশ হত্যাকাণ্ড : হাত-পা চেপে ধরে মা, গলা কাটে ছেলে ঋণ পরিশোধ করতে কিছু জমি বিক্রি করেন নাসরুল হাওলাদার। কিন্তু জমি বিক্রির টাকা নিয়ে স্ত্রী আর বড় ছেলের সঙ্গে বিরোধ চলছিল তার। এরই জেরে বাবাকে গলা কেটে হত্যা করেন ছেলে ইমরান হাওলাদার। হত্যার সময় হাত-পা চেপে ধরেন মা রিনা বেগম। বুধবার রাতে পটুয়াখালীর দশমিনা উপজেলার বাশবাড়িয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত নাসরুল হাওলাদার একই গ্রামের বাসিন্দা। বুধবার রাতে নিজের ঘরে ঘুমিয়ে ছিলেন নাসরুল হাওলাদার। পরে রাতেই মায়ের সহায়তায় বাবার গলা কাটেন ইমরান। গলা কাটার সময় একটি বড় পাত্রে নাসরুলের রক্ত ভরে রাখা হয়। আর লাশ গায়েব করতে কম্বলে পেঁচিয়ে বস্তাবন্দি করে পাশের একটি ছাগলের খামারে ফেলে রাখা হয়। ভোর হয়ে যাওয়ায় গায়েব করা আর সম্ভব হয়নি। আরো পড়ুন: গভীর রাতে শাড়ি-ব্লাউজ পরে ফিরলেন নিখোঁজ ৩ সন্তানের বাবা বৃহস্পতিবার সকালে স্থানীয়রা ছাগলের খামারে বস্তাবন্দি রক্তাক্ত লাশ দেখে পুলিশে খবর দেয়। পরে পুলিশ নাসরুলের লাশ উদ্ধার করে সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। ঘটনার পর থেকে ইমরান পলাতক রয়েছেন। তবে নাসরুলের স্ত্রী রিনা বেগমকে আটক করেছে পুলিশ। বাশবাড়িয়া ইউপি চেয়ারম্যান আলতাফ হোসেন আকন বলেন, কিছুদিন আগে মানুষের দেনা-পাওনা পরিশোধ করতে ছয় শতক জমি বিক্রি করেন নাসরুল। ওই টাকার জন্য নাসরুলের সঙ্গে তার স্ত্রী রিনা ও বড় ছেলে ইমরানের মধ্যে বিরোধ চলছিল। এ নিয়ে নাসরুলকে হত্যা করা হয়। এমন হত্যাকাণ্ড দশমিনার মানুষ আর কখনো দেখেনি। দশমিনা থানার ওসি মো. জসীম বলেন, নাসরুলের স্ত্রী রিনা বেগমকে আটক করা হয়েছে। বড় ছেলে ইমরানকেও আটকের চেষ্টা চলছে।

ঋণ পরিশোধ করতে কিছু জমি বিক্রি করেন নাসরুল হাওলাদার। কিন্তু জমি বিক্রির টাকা নিয়ে স্ত্রী আর বড় ছেলের সঙ্গে বিরোধ চলছিল তার। এরই জেরে বাবাকে গলা কেটে হত্যা করেন ছেলে ইমরান হাওলাদার। হত্যার সময় হাত-পা চেপে ধরেন মা রিনা বেগম।

বুধবার রাতে পটুয়াখালীর দশমিনা উপজেলার বাশবাড়িয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত নাসরুল হাওলাদার একই গ্রামের বাসিন্দা।

বুধবার রাতে নিজের ঘরে ঘুমিয়ে ছিলেন নাসরুল হাওলাদার। পরে রাতেই মায়ের সহায়তায় বাবার গলা কাটেন ইমরান। গলা কাটার সময় একটি বড় পাত্রে নাসরুলের রক্ত ভরে রাখা হয়। আর লাশ গায়েব করতে কম্বলে পেঁচিয়ে বস্তাবন্দি করে পাশের একটি ছাগলের খামারে ফেলে রাখা হয়। ভোর হয়ে যাওয়ায় গায়েব করা আর সম্ভব হয়নি।

আরো পড়ুন:চাঁদপুরে ভোরে হাঁটতে গেলেন মা, ঘরে ঢুকে মেয়েকে ধর্ষণ

বৃহস্পতিবার সকালে স্থানীয়রা ছাগলের খামারে বস্তাবন্দি রক্তাক্ত লাশ দেখে পুলিশে খবর দেয়। পরে পুলিশ নাসরুলের লাশ উদ্ধার করে সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। ঘটনার পর থেকে ইমরান পলাতক রয়েছেন। তবে নাসরুলের স্ত্রী রিনা বেগমকে আটক করেছে পুলিশ।

বাশবাড়িয়া ইউপি চেয়ারম্যান আলতাফ হোসেন আকন বলেন, কিছুদিন আগে মানুষের দেনা-পাওনা পরিশোধ করতে ছয় শতক জমি বিক্রি করেন নাসরুল। ওই টাকার জন্য নাসরুলের সঙ্গে তার স্ত্রী রিনা ও বড় ছেলে ইমরানের মধ্যে বিরোধ চলছিল। এ নিয়ে নাসরুলকে হত্যা করা হয়। এমন হত্যাকাণ্ড দশমিনার মানুষ আর কখনো দেখেনি।

দশমিনা থানার ওসি মো. জসীম বলেন, নাসরুলের স্ত্রী রিনা বেগমকে আটক করা হয়েছে। বড় ছেলে ইমরানকেও আটকের চেষ্টা চলছে।

ফেসবুকে আমরা

এ বিভাগের আরও সংবাদ
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব www.bangla24bdnews.com কর্তৃক সংরক্ষিত
Customized By NewsSmart