1. admin@bangla24bdnews.com : b24bdnews :
  2. tanvirahmedtonmoy1987@gmail.com : shuvo khan : shuvo khan
বুধবার, ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০২০, ০৪:৫২ অপরাহ্ন

বাংলাদেশ শুধু স্বপ্ন দেখে না, স্বপ্ন বাস্তবায়ন করে: এলজিআরডি মন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার (বাংলা ২৪ বিডি নিউজ):
  • আপডেট সময় : সোমবার, ৬ জানুয়ারী, ২০২০
  • ৫৩ জন সংবাদটি পড়েছেন

বাংলাদেশ শুধু স্বপ্ন দেখেনা, স্বপ্ন বাস্তবায়ন করে এবং বিশ্ব নেতৃত্বকে স্বপ্ন দেখায় বলে মন্তব্য করেছেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী তাজুল ইসলাম। সোমবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জের রুপগঞ্জে উদ্বোধনের অপেক্ষায় থাকা নবনির্মিত গোলাম দস্তগীর গাজী বীরপ্রতীক সেতু ও ইছাখালি সেতুর নির্মাণ কাজ পরিদর্শনে এসে স্থানীয়দের সাথে মতবিনিময় সভায় মন্ত্রী এ মন্তব্য করেন।
তিনি বলেন, আমরা বাংলাদেশকে সিঙ্গাপুর বা মালোশিয়ার আদলে গড়ে তুলতে চাই। এজন্য শেখ হাসিনার নের্তৃত্বে জনগনকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। শেখ হাসিনার নের্তৃত্বে বহুমুখী উন্নয়নের কারনে বাংলাদেশ আজ অভিষ্ট লক্ষ্যে পৌঁছে গেছে। তিনি বলেন, যে দেশের কোন সম্ভাবনা ছিলো না সেই দেশ আজ উন্নত দেশগুলোতে নের্তৃত্ব দিচ্ছে এবং বিশ্ব তা স্বীকৃতি দিয়েছে।
এলজিআরডি মন্ত্রী জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ইতিমধ্যে ২০৪১ সালে বাংলাদেশ কেমন হবে সেই পরিকল্পনা গ্রহণ করেছেন। ২০২১ সালে বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের দেশে পরিনত হবে। এটা বাস্তবায়ন করতে রুপরেখা তৈরি করা হয়েছে। ২০২১ সালকে সামনে রেখে ২০০৯ সাল থেকেই বিভিন্ন প্রকল্প গ্রহন করে তা বাস্তবায়ন করা হয়েছে। এই বস্তবায়নের কারনে দেশে দারিদ্রতার হার অনেক কমে গেছে।
বস্ত্র ও পাট মন্ত্রী বলেন, ‘বীরপ্রতীক গাজী সেতুর কারণে বদলে যাবে পুরো রূপগঞ্জের চিত্র। এছাড়া ব্যবসা, বাণিজ্য, শিল্প-কারখানার মালামাল পরিবহনে সময় ও ব্যয় দুটোই কমে আসবে। ঢাকা থেকে সিলেট এবং চট্টগ্রাম যাওয়ার জন্য কয়েকটি জেলার যাত্রীরা মুড়াপাড়া ও রূপগঞ্জ সদর এলাকার শীতলক্ষ্যা নদীর উপর দিয়ে চলাচল করা ফেরি ব্যবহার করেন। ফলে এই পথে যানজটের কবলে পড়তে হয় তাদের। বীরপ্রতীক গাজী সেতু সেই সমস্যার সমাধান করবে। এছাড়া সেতুটি নির্মাণের ফলে সিলেট, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, কিশোরগঞ্জ ও নরসিংদী জেলার দূরত্ব ঢাকার সঙ্গে ১০ কিলোমিটার কমবে। একইসঙ্গে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ও পূর্বাচল উপশহরের সঙ্গে সরাসরি যোগাযোগ স্থাপিত হবে। এতে করে ঢাকা-সিলেট ও ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের উপর চাপ কমবে এবং এলাকার আর্থ সামাজিক অবস্থার উন্নতি ঘটবে। এমনকি রাজধানীর সঙ্গে রূপগঞ্জের দূরত্ব কমে যাবার কারণে নতুন নতুন শিল্পকারখানা গড়ে উঠবে বলেও আশা করা হচ্ছে।’
মতবিনিময় সভায় এলজিইডি’র প্রধান প্রকৌশলী সুশংকর চন্দ্র আচার্য্য জানান, এলজিআরডি মন্ত্রনালয়ের অর্থায়নে ২০১৬ সালে রূপগঞ্জ উপজেলার মুড়াপাড়া-কায়েকপাড়া এলাকায় শীতলক্ষ্যা নদীর উপর ৭৬ কোটি টাকা ব্যয় নির্ধারণ করে ৫৭৬ মিটার দৈর্ঘ্যরে গোলাম দস্তগীর গাজী বীরপ্রতীক সেতুর নির্মান কাজ শুরু করা হয়। একই সময়ে ইছাপুরা এলাকায় ৩৯ কোটি টাকা ব্যয়ে ৩২০ মিটার দৈর্ঘ্যরে ইছাপুরা সেতুর নির্মান কাজও শুরু হয়। ইতিমধ্যে সেতু দুইটির নির্মান কাজের ৯৮ শতাংশ শেষ হয়েছে। অল্প সময়ের মধ্যে প্রকল্প দুইটির নির্মান কাজ শেষ করার প্রক্রিয়া চলছে। পুরো কাজ শেষ হলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আনুষ্ঠানিকভাবে সেতু দুটির উদ্বোধন করবেন।
নারায়ণগঞ্জের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ জসিম উদ্দিনের সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, নারায়ণগঞ্জ-১ (আড়াইহাজার) আসনের সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম বাবু, স্থানীয় সরকার মন্ত্রনালয়ের সচিব হেলালুদ্দিন আহমেদ ও এলজিইডি’র প্রধান প্রকৌশলী সুশংকর চন্দ্র আচার্য্য ও রূপগঞ্জ উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা (ইউএনও) মমতাজ বেগম।

ফেসবুকে আমরা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরও সংবাদ
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব www.bangla24bdnews.com কর্তৃক সংরক্ষিত
Customized By NewsSmart
ছি: কি করছেন মামা