1. admin@bangla24bdnews.com : b24bdnews :
  2. robinmzamin@gmail.com : mehrab hossain provat : mehrab hossain provat
  3. maualh4013@gmail.com : md aual hosen : Md. Aual Hosen
  4. tanvirahmedtonmoy1987@gmail.com : shuvo khan : shuvo khan
বৃহস্পতিবার, ২৯ অক্টোবর ২০২০, ০২:২২ অপরাহ্ন

যুদ্ধের দামামা খরচ বাড়াল আকাশপথে

ডেস্ক রিপোর্ট (বাংলা ২৪ বিডি নিউজ):
  • আপডেট সময় : বৃহস্পতিবার, ৯ জানুয়ারী, ২০২০
  • ১৩৭

সাম্প্রতিক সময়ে যুক্তরাষ্ট্র এবং ইরানের মধ্যে চলমান উত্তেজনা আকাশপথে খরচ অনেক বাড়িয়ে দিয়েছে। বিভিন্ন এয়ারলাইন্সকে অধিক জ্বালানি খরচ বহন করতে হচ্ছে।

বুধবার এক ঘণ্টার ব্যবধানে ইরাকে মার্কিন ঘাঁটিতে দু’বার হামলা চালায় ইরান। তার আগে গত শুক্রবার ইরাকের রাজধানী বাগদাদের আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ড্রোন হামলা চালিয়ে ইরানের বিপ্লবী গার্ড বাহিনীর প্রধান জেনারেল কাসেম সোলেইমানিকে হত্যা করা হয়। এই জেনারেলের হত্যার প্রতিশোধ নিতেই মার্কিন ঘাঁটিতে হামলা চালায় তেহরান।

এদিকে, জেনারেল কাসেম সোলেইমানিকে হত্যার ঘটনাকে কেন্দ্র করে ইরান ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে যুদ্ধ পরিস্থিতি তৈরি হওয়ায় ইরান ও ইরাকের আকাশসীমা এড়িয়ে চলছে বিভিন্ন এয়ারলাইন্স। অপরদিকে বুধবার ইরানের রাজধানী তেহরানে ১৭৬ আরোহী নিয়ে ইউক্রেনের একটি বিমান বিধ্বস্ত হওয়ায় ঘটনায় নতুন করে উত্তেজনা শুরু হয়েছে।

নিহতদের মধ্যে ৮২ জন ইরানি, ৬৩ জন কানাডীয়, ১০ জন সুইডেনের, চারজন আফগানিস্তানের, তিনজন জার্মানির এবং তিনজন ব্রিটেনের নাগরিক। অপরদিকে নয় ক্রুসহ ১১ জন ইউক্রেনের নাগরিক নিহত হয়েছেন।

বুধবার সকালে বোয়িং ৭৩৭ বিমানটি তেহরানের আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে উড্ডয়ন করে। এটি ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভের পথে যাত্রা করেছিল। ইরানের গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে ওই বিমানটি বিধ্বস্ত হয়েছে।

সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্স, মালয়েশিয়া এয়ারলাইন্স, জার্মানির লুফথানসা এবং এয়ার ফ্রান্স-কেএলএম তাদের বিমানের ফ্লাইট ইরানের আকাশসীমা এড়িয়ে চলাচল করছে। ইরাকে মার্কিন ঘাঁটিতে ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র হামলার পর থেকেই ইরানের আকাশসীমা ব্যবহার করা বন্ধ করে দিয়েছে তারা। ফলে অন্য পথে ঘুরে গন্তব্যে পৌঁছাতে অনেক বেশি সময় লেগে যাচ্ছে এবং এতে খরচও অনেক বেড়ে গেছে।

স্বতন্ত্র বিমান চলাচলের বিষয়ে পরামর্শদাতা জন স্ট্রিকল্যান্ড বলেন, ইরাক এবং ইরানের আকাশসীমা এড়িয়ে ভিন্ন পথে বিমান চলাচল এয়ারলাইন্সগুলোর জন্য দ্বিগুন মাথাব্যথার কারণ হয়েছে। এতে গন্তব্যে পৌঁছানোর সময় যেমন বাড়ছে তেমনি খরচও বাড়ছে।

অপসগ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জি বলেন, ইউরোপ থেকে এশিয়াগামী বিমান ইরান এবং ইরাকের আকাশসীমা এড়িয়ে চলাচলের ক্ষেত্রে অতিরিক্ত ৪০ মিনিট সময় ব্যয় করতে হবে।

অস্ট্রেলিয়ার কান্তাস এয়ারলাইন্স বলছে, পের্থ থেকে লন্ডনের ফ্লাইটে ৫০ মিনিট সময় বেশি ব্যয় হবে। এর ফলে জ্বালানী বেশি খরচ হবে। ভার্জিন আটলান্টিক এয়ারলাইন্স বলছে, মুম্বাই থেকে বা মুম্বাইগামী তাদের বিভিন্ন ফ্লাইটে আগের চেয়ে আরও বেশি সময় লাগতে পারে।

অপরদিকে, মার্কিন ফেডারেল এভিয়েশন অ্যাডমিন্সট্রেশন (এফএএ) ইরান, ইরাক এবং উপসাগরীয় দেশগুলোর আকাশসীমা ব্যবহারে তাদের সব বিমানের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে।

ফেসবুকে আমরা

এ বিভাগের আরও সংবাদ
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব www.bangla24bdnews.com কর্তৃক সংরক্ষিত
Customized By NewsSmart