1. admin@bangla24bdnews.com : b24bdnews :
  2. robinmzamin@gmail.com : mehrab hossain provat : mehrab hossain provat
  3. maualh4013@gmail.com : md aual hosen : Md. Aual Hosen
  4. tanvirahmedtonmoy1987@gmail.com : shuvo khan : shuvo khan
সোমবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০১:৪৯ অপরাহ্ন

সিটি নির্বাচন নিয়ে নেতার্কমীদের কড়া বার্তা নাছির-নওফেলের

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি (বাংলা ২৪ বিডি নিউজ):
  • আপডেট সময় : শনিবার, ৮ ফেব্রুয়ারী, ২০২০
  • ১১৯

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (চসিক) আসন্ন নির্বাচন নিয়ে নেতাকর্মীদের বিবাদে না জড়াতে কড়া বার্তা দিয়েছেন সিটির মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন এবং শিক্ষাউপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল।

শনিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় তারা এই বার্তা দেন। সভায় নওফেল ও নাছিরকে হাসিমুখে করমর্দন ও কুশল বিনিময় করতেও দেখা যায়।

প্রসঙ্গত, মেয়র নাছির ও সম্ভাব্য মেয়র প্রার্থী নওফেল নেতাকর্মীদের উদ্দ্যেশ্যে এমন এক সময়ে এ বার্তা দিলেন, যখন আসন্ন চট্টগ্রাম সিটি নির্বাচনকে সামনে রেখে দুই নেতার কর্মী-সমর্থকরা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পাল্টপাল্টি বক্তব্য ও বিবাদে জড়িয়ে পড়েছেন। বিভিন্ন গণমাধ্যমে মেয়র পদে বর্তমান মেয়র আ জ ম নাছিরের পাশাপাশি নওফেলের নাম আলোচনায় আসছে।

মূলত চট্টগ্রামের রাজনীতিতে উপমন্ত্রী নওফেলের বাবা সাবেক মেয়র এ বি এম মহিউদ্দিন চৌধুরী ও বর্তমান মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিনের বিরোধ ছিল টক অব দ্যা কান্ট্রি। তাই সেই ধারাবাহিকতায় চট্টগ্রাম সিটি নির্বাচনের আগে এবারও কর্মী-সমর্থকদের মাঝে সেই বিরোধের রেশ থেকেই গেছে।

নগর আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, ‘আত্মঘাতী কর্মকাণ্ড থেকে যতটুকু সম্ভব, নিজেদের বিরত রাখার চেষ্টা করতে হবে। পরস্পরকে হেয় করা, কোণঠাসা করার চেষ্টা, ফেসবুকে পরস্পরের বিরুদ্ধে কোনো একটা বিষয় ভাইরাল করে দেয়া, এগুলো বন্ধ করতে হবে। এসব বন্ধ করা না গেলে দিন শেষে ক্ষতি হবে আমাদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার, সরকারের এবং দলের। এসব প্রচারণা যদি সত্যি হয়, তাহলে আপনারা সভা ডেকে দলীয় ফোরামে আলোচনা করবেন। সেখানে নিষ্পত্তি করুন। যেভাবে হোক, দলের ভাবমূর্তি রক্ষা করতে হবে। না হলে পদে আসীনরা প্রশ্নবিদ্ধ হবে, দল ক্ষতিগ্রস্ত হবে।’

মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন চট্টগ্রাম নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকও। দলীয় বার্তা দিতে গিয়ে তিনি বলেন, ‘১৬ ফেব্রুয়ারি চট্টগ্রাম সিটি নির্বাচনের তফসিল হবে। আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশীরা এখন থেকে দলীয় মনোনয়ন ফরম নিতে পারবেন, তা জমা দিতে হবে ১৪ ফেব্রুয়ারির মধ্যে।’

চট্টগ্রাম-৮ আসনে উপনির্বাচনে ভোটার উপস্থিতি কম হওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করে তিনি বলেন, ‘কেন্দ্রের বাইরে আমাদের অনেকেই ছিল। কিন্তু ভোট কত পড়েছে? যদি নিজ নিজ এলাকায় আস্থা তৈরি করতে পারতাম, জনগণ বাধ ভাঙা জোয়ারের মতো ভোট দিতে যেত। দেশে ৩০০ আসনের মধ্যে যেটা একেবারে খারাপ আসন সেখানেও তো আমাদের দলের ৩০ শতাংশ ভোটার আছে। সেই ভোটাররা কোথায় গেল? আমাদের ভোটগুলো কোথায় গেল?’

মেয়র পদে মনোনয়ন পাওয়া নিয়ে দ্বন্দ্বে না জড়াতে নেতাদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল বলেন, ‘চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের নির্বাচন আসছে। গণমাধ্যমে অনেক ধরনের আলোচনা-সমালোচনা আসবে। একজন আরেকজনের সম্পর্কে কথা বললেও আরও একটু বানিয়ে দেয়া কিংবা না বললেও একটু লিখে দেয়া, এগুলো কিন্তু হচ্ছে। আলোচনা-সমালোচনা এগুলো গণমাধ্যমের স্বাভাবিক কাজ। তা মেনেই আমাদের কাজ করতে হবে। কিন্তু এতে করে আমাদের মধ্যে কোনো ধরনের ভুল বোঝাবুঝি যেন না হয়। আমরা নির্বাচনে মনোনয়নের আগে এই ধরনের কথাবার্তা বলে আমাদের মনোবল দুর্বল করতে চাই না।’

তিনি আরও বলেন, ‘চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগ চট্টগ্রাম জেলার মধ্যে সব থেকে শক্তিশালী সংগঠন। আমাদের মধ্যে অনেকে নির্বাচন করতে চাইবেন, স্বাভাবিক। কাউন্সিলর পদেও হয়ত সর্বোচ্চ চাইবেন। কিন্তু নির্বাচনের প্রাক্কালে কলিশন যেন না হয়। তফসিল ঘোষণা হয়ে যাবে, প্রচারণাও শুরু হবে। আমরা যেন সংযত থাকি।’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত জানিয়ে তিনি বলেন, ‘দলের জন্য আমরা কেউ অপরিহার্য নই। আমার-আপনার যতই সুখ্যাতি থাকুক, সেটা নিয়ে আমরা দল করি না। বঙ্গবন্ধুর আদর্শ এবং তার কন্যার সিদ্ধান্তের দিকে তাকিয়েই আমরা দল করি। উনার (শেখ হাসিনা) সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত। উনি যে সিদ্ধান্ত দেবেন, সে অনুযায়ী আমরা মাঠে নামব। একটাই ম্যাসেজ, নিশ্চয় তিনি আমাদের দিকনির্দেশনা দেবেন, সেই অনুযায়ী কাজ করব।’

চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক শফিকুল ইসলাম ফারুকের সঞ্চালনায় বর্ধিত সভায় উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি নঈম উদ্দিন চৌধুরী, খোরশেদ আলম সুজন, অ্যাডভোকেট সুনীল কুমার সরকার, অ্যাডভোকেট ইব্রাহিম হোসেন চৌধুরী বাবুল, এম. জহিরুল আলম দোভাষ, আলতাফ হোসেন চৌধুরী বাচ্চু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এম. রেজাউল করিম চৌধুরী, হাজী এম.এ রশীদ, কোষাধ্যক্ষ আবদুচ ছালাম, উপদেষ্টা শফর আলী, শেখ মোহাম্মদ ইসহাক, সাংগঠনিক সম্পাদক নোমান আল মাহমুদ, শফিক আদনান, চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী প্রমুখ।

ফেসবুকে আমরা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরও সংবাদ
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব www.bangla24bdnews.com কর্তৃক সংরক্ষিত
Customized By NewsSmart