1. admin@bangla24bdnews.com : b24bdnews :
  2. robinmzamin@gmail.com : mehrab hossain provat : mehrab hossain provat
  3. maualh4013@gmail.com : md aual hosen : Md. Aual Hosen
  4. tanvirahmedtonmoy1987@gmail.com : shuvo khan : shuvo khan
শনিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২০, ০৮:৫৩ অপরাহ্ন

১০ বছরের মধ্যেই মাথা প্রতিস্থাপন সম্ভব হবে, দাবি নিউরোসার্জনের

ডেস্ক রিপোর্ট (বাংলা ২৪ বিডি নিউজ):
  • আপডেট সময় : মঙ্গলবার, ২৪ ডিসেম্বর, ২০১৯
  • ১৮০

যুক্তরাজ্যের ম্যাথু এনএইচএস ট্রাস্ট চালিত হাল ইউনিভার্সিটি টিচিং হাসপাতালের সাবেক নিউরোসার্জন ব্রুস ম্যাথু আশাবাদী, আগামী ১০ বছরের মধ্যেই দুই ভিন্ন ব্যক্তির মধ্যে মাথা প্রতিস্থাপন সম্ভব হতে পারে। তবে, এখন যেভাবে স্পাইনাল কর্ড বা সুষুম্নাকাণ্ড থেকে মাথা বিচ্ছিন্ন করে প্রতিস্থাপনের চেষ্টা চলছে, তা সম্ভব নয় বলেই মনে করেন এনএইচএসের এই শল্যচিকিৎসক। তার দাবি, সুষুম্নাকাণ্ড সহ মাথা প্রতিস্থাপন করতে হবে। অত্যাধুনিক স্টেমসেল প্রতিস্থাপন, রোবোটিক ও স্নায়ু সার্জারির সৌজন্যেই এই সাফল্য মিলবে।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য টেলিগ্রাফ এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানায়।

কীভাবে মাথা প্রতিস্থাপন করা যায় তা নিয়ে জোর গবেষণা চলছে বিগত কয়েক বছর ধরেই। তবে আ-দৌ জীবিত মানুষের মাথা প্রতিস্থাপন সম্ভব কি না, তা নিয়ে বিতর্ক রয়েছে। বিশেষজ্ঞদের একটা বড় অংশ মনে করেন, এটা বাস্তবে সম্ভব নয়। কিন্তু, নিউরোসার্জন ব্রুস ম্যাথুর দাবি, এটা অসম্ভব নয়।

দুই বছর আগে ইতালীয় নিউরোসার্জন সের্গিও কানাভেরো দাবি করছিলেন, তার নেতৃত্বে চিকিৎসক দল প্রথমবার সফলভাবে মানুষের মাথা প্রতিস্থাপন করতে সক্ষম হয়েছে। যা চিকিৎসা বিজ্ঞানের ক্ষেত্রে বিস্ময়কর। তবে জীবিত মানুষের মাথা প্রতিস্থাপন করেননি তিনি। চীনের গবেষণাগারে দুটি মৃত মানুষের মাথা প্রতিস্থাপন করেছিল ওই চিকিৎসক দলটি।

ইতালীয় শল্যচিকিৎসক সের্গিও কানাভেরো দীর্ঘদিন ধরেই দাবি করছিলেন, এক মানুষের শরীরে অন্য মানুষের মাথা প্রতিস্থাপন করা সম্ভব। কিন্তু ইউরোপ বা আমেরিকার কোনো দেশের সরকারই তাকে এমন পরীক্ষা-নিরীক্ষার সুযোগ দিতে চায়নি। নৈতিক কারণেই এমন পরীক্ষা-নিরীক্ষা করতে দেয়া সম্ভব নয় বলে জানিয়ে দেয়া হয় কানাভেরোকে। ফলে, গবেষণার প্রয়োজনে চীনে গিয়েছিলেন ইতালীয় ওই নিউরোসার্জন। দুবছর আগে, সংবাদ সম্মেলন করে গবেষণায় সাফল্যের কথা জানান কানাভেরো। তিনি দাবি করেন, চীনের গবেষণাগারে সফলভাবে মানুষের মাথা প্রতিস্থাপিত হয়েছে। দীর্ঘ ১৮ ঘণ্টা সময় ধরে চলে ওই প্রতিস্থাপন। তার সঙ্গে ছিলেন চীনা চিকিৎসক রেন শিওয়াপিং।

অস্ট্রিয়ার ভিয়েনায় ওই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। সেখানে কানাভেরো জানান, এক মানুষের শরীরে অন্য মানুষের মাথা সফলভাবে প্রতিস্থাপিত হয়েছে। মেরুদণ্ড, স্নায়ু এবং ব্লাড ভেসেলগুলো সফলভাবে জুড়ে দেয়া সম্ভব হয়েছে। তবে এই পরীক্ষামূলক প্রতিস্থাপন জীবিতদের শরীর ব্যবহার করে হয়নি। তবে পরবর্তীতে সেই দিকেই এগোতে চান বলে জানান কানাভেরো।

ফেসবুকে আমরা

এ বিভাগের আরও সংবাদ
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব www.bangla24bdnews.com কর্তৃক সংরক্ষিত
Customized By NewsSmart