৭ লাখ লাইসেন্সবিহীন চালকের হাতে স্টিয়ারিং

0
13

ঢাকা (বাংলা ২৪ বিডি নিউজ): সরকারি হিসাবেই অন্তত ৭ লাখ লাইসেন্সবিহীন চালক চালাচ্ছেন বিভিন্ন ধরনের যানবাহন। বেসরকারি হিসাবে এ সংখ্যা ১৭ লাখের মতো। লাইসেন্সবিহীন বিপুলসংখ্যক চালকের কারণেই সড়ক-মহাসড়কে দুর্ঘটনার সংখ্যা বাড়ছে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটি সূত্র জানায়, দেশে ২২ লাখের ওপর রেজিস্ট্রেশনকৃত যানবাহন থাকলেও লাইসেন্সধারী চালক রয়েছেন ১৫ লাখ। এ হিসেবে লাইসেন্স ছাড়া যানবাহন চালাচ্ছেন সাত লাখ চালক। এ ছাড়া নছিমন, করিমন, ভটভটিসহ আরও অবৈধ ১০ লাখ যানবাহন চলছে সারা দেশে। এসবের চালকদের কারও লাইসেন্স অথবা প্রাতিষ্ঠানিক দক্ষতা নেই। বিআরটিএ সূত্রে জানা গেছে, চলতি বছরের ২৬শে জুলাই পর্যন্ত সারা দেশে রেজিস্ট্রেশনভুক্ত মোট পরিবহনের সংখ্যা ২২ লাখ ৪৩ হাজার ৩৩৬। সরকারি লাইসেন্সপ্রাপ্ত চালকের সংখ্যা ১৫ লাখ। তবে, বৈধ ও অবৈধ মিলে দেশে মোট যানবাহনের সংখ্যা ৩২ লাখের বেশি বলে ওই সূত্রটি দাবি করে। 
85508_f1অনুসন্ধানে জানা গেছে, বেশির ভাগ শর্তপূরণ ছাড়াই এ পর্যন্ত ১৫ লাখের বেশি লাইসেন্স দিয়েছে বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটি (বিআরটিএ)। সব জেলায় চোখের দেখায় লাইসেন্স সনদ পাচ্ছেন চালকরা। অনেক ক্ষেত্রে প্রশিক্ষক ও ডাক্তারের সার্টিফিকেট নকল করে মিলছে বৈধ চালকের সনদ। অপ্রাতিষ্ঠানিকভাবে ‘ওস্তাদের’ কাছ থেকে শিক্ষা নিয়ে গাড়ি চালাচ্ছে এমন চালকের সংখ্যাই বেশি। অনুমোদিত শতাধিক ড্রাইভিং স্কুলের কোন তদারকি নেই। সড়ক দুর্ঘটনা রোধে চালকদের বিরুদ্ধে নেই কঠোর আইন। বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, সড়কে মৃত্যুর মিছিল থামাতে হলে তিন ধরনের লাইসেন্স পাওয়ার ক্ষেত্রে সব শর্ত পূরণ করতে হবে। সঠিক পদ্ধতি মেনে লাইসেন্স দেয়া হলে সড়ক দুর্ঘটনার লাগাম টেনে ধরা সম্ভব। সড়ক দুর্ঘটনার জন্য বাড়াতে হবে শাস্তি। শিক্ষিতদের আনতে হবে চালকের পেশায়। সেই সঙ্গে প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ ও জনসচেতনতা সৃষ্টির বিকল্প নেই বলেও মনে করেন তারা। এ বিষয়ে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) সড়ক দুর্ঘটনা ইনস্টিটিউটের সহকারী অধ্যাপক কাজী মো. শিপন নেওয়াজ মানবজমিনকে বলেন, তারা গবেষণায় দেখেছেন দুর্ঘটনার জন্য ৯০ ভাগ দায়ী চলক। গাড়ির মাত্রারিক্ত গতি ও বেপরোয়া চালকের কারণে দুর্ঘটনা ঘটেছে।
এ বিষয়ে চালকদের লাইসেন্স দেয়ার ক্ষেত্রে স্বচ্ছতা প্রসঙ্গে বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটি (বিআরটিএ) সচিব মুহাম্মদ শওকত আলী বলেন, ৯০ ভাগ লাইসেন্স সঠিকভাবে দেয়া হয়। তবে, উচ্চপর্যায়ের বিভিন্ন রাজনৈতিক, সরকারি কর্মকর্তা ও ব্যবসায়ীদের ইত্যাদি পরিচয়ে তদবির করে কিছু লাইসেন্স নেয়। যারা লেখাপড়া জানে না এ রকম কিছু চালকের লাইসেন্স দিতে হয় প্রভাশালীদের চাপে। চালকদের লিখিত, মৌখিকসহ ব্যবহারিক পরীক্ষা নেয়া হয়। তবে, বিআরটিএ অফিসে বহিরাগত কিছু দালাল আছে। তারা এখানে ঘুরাফেরা করে। তাদের বিরুদ্ধে মনিটরিং করছি। দালালিরত অবস্থায় পাওয়া মাত্রই ওই দালালদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হয়। তিনি বলেন, তিন কারণে দুর্ঘটনা ঘটছে। রাস্তা ব্যবহারকারী, যাতায়াতকারী ও পরিবহনের কারণে। ত্রুটিযুক্ত যান, রাস্তা ব্যবহারের ক্ষেত্রে ওভারটেকিং ও স্পিড অন্যতম কারণ। পথচারীরা আইন মানেন না। তারা যখন তখন দৌড় দিয়ে রাস্তা ক্রসিং করেন। যত্রতত্র গাড়ি পার্কিং। ফিটনেসবিহীন গাড়ি রাস্তায় চলে আসার জন্য হাইওয়ে ও মহানগর পুলিশকে দায়ী করেন সচিব। তিনি বলেন, গাড়ির কাগজপত্র সঠিকভাবে পরীক্ষা না করায় এগুলো রাস্তা চলে আসে। নছিমন, করিমন, ভটভটি ও সিএনজি নিষিদ্ধ করতে হবে। যাতে এগুলো প্রধান সড়কে না আসে। নছিমন, করিমন, ভটভটি থেকে সরকার রাজস্বও পায় না। নেয়ারও সুযোগ নেই। 
বিআরটিএ সূত্রে জানা গেছে, লাইসেন্স পাওয়ার ক্ষেত্রে একজন চালককে ওয়ার্নিং সাইন, ইনফরমেশন সাইন, রুট সাইন, রুট মার্কিং, সাপিমেন্টারি পেটস, ট্রাফিক সাইন, বাধ্যতামূলক সাইন চেনা নিশ্চিত করতে হবে। আমাদের দেশে চালকদের অনেকেই আছেন এর কোন কিছুই জানেন না। চোখের দেখা ও আন্দাজের ওপর গাড়ি চালান।
এ ব্যাপারে নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলনের চেয়ারম্যান ও চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন  বলেন, পরীক্ষা ছাড়াই অনেকে মূল লাইসেন্স নিয়েছে। বিআরটিএ যেসব লাইসেন্স দিয়েছে তা সঠিকভাবে দেয়নি। এটা নিয়ে আমাদের আন্দোলনের কারণে লাইসেন্স নবায়নের সময় পরীক্ষা দিতে বলেছেন আদালত। কিন্তু বিআরটিএর গাড়ি পরিদর্শক গাড়ি ফিটনেস যাচাই-বাছাইয়ের সময় আবার তা দিয়েছে। 
এ বিষয়ে বাংলাদেশ যাত্রীকল্যাণ সমিতির মহাসচিব মো. মোজাম্মেল হক চৌধুরী তাদের পর্যবেক্ষণের কথা তুলে ধরে জানান, চালকদের পরীক্ষা ছাড়াই লাইসেন্স দেয়া হচ্ছে। পদ্ধতির শুরুতে গলদ রয়েছে। ৮১ ভাগ চালককে একটি লাইসেন্স নিতে ঘুষ দিতে হয়। ১০ ভাগ চালক রাজনৈতিক প্রভাব খাটিয়ে লাইসেন্স নিচ্ছেন। মাত্র ৮ ভাগ চালক যোগ্যতার প্রমাণ দিয়ে গাড়ি চালানোর সনদ পাচ্ছেন। এক ভাগ চালক বিআরটিএর কর্মকর্তা-কর্মচারীদের আত্মীয় পরিচয়ে লাইসেন্স নিচ্ছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here