আরো একটি চাঁদাবাজি মামলায় নুর হোসেনের হাজিরা

0
4

নারায়ণগঞ্জ (বাংলা ২৪ বিডি নিউজ): নারায়ণগঞ্জে আলোচিত সেভেন মার্ডারের মামলার প্রধান আসামি নূর হোসেনকে আরো একটি চাঁদাবাজি মামলায় নারায়ণগঞ্জ আদালতে হাজির করা হয়েছে। কঠোর নিরাপত্তা ও গোপনীয়তা রক্ষা করে সকাল সাড়ে ৯টায় নারায়ণগঞ্জ অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট অশোক কুমার দত্তের আদালতে নূর হোসেনকে হাজির করা হয়। সিদ্ধিরগঞ্জ থানার একটি চাঁদাবাজি মামলায় এ আদালতে শুনানি শেষে আবারও কঠোর নিরাপত্তায় তাকে ঢাকার কাশিমপুর কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।
নারায়ণগঞ্জ কোর্ট পুলিশের উপ পরিদর্শক গোলাম হোসেন জানান, ২০১৩ সালের ৩০মে সিদ্ধিরগঞ্জের সানারপাড় এলাকার ইকবাল হোসেন নামের একজন ব্যবসায়ীর কাছে ৫ লাখ টাকা চাঁদা না পেয়ে তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ভাঙচুর করে নূর হোসেন ও তার সহযোগিরা। এ ঘটনায় ইকবাল ২০১৪ সালের ৮ জুন সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় একটি চাঁদাবাজী মামলা দায়ের করেন। এরপর পুলিশ তদন্ত শেষে নুর হোসেন, তার ভাতিজা নাসিক কাউন্সিলর শাহজালাল বাদল, সহযোগী আলী মোহাম্মদ, চার্চিল, শাহজাহান ও বুলবুল ওরফে টুন্ডা বুলবুলের বিরুদ্ধে গত ১৫ জানুয়ারী আদালতে অভিযোগপত্র (চার্জশীট) দাখিল করেন।
উল্লেখ গত বছরের ২৭ এপ্রিল নাসিকের কাউন্সিলর নজরুল ইসলাম ও আইনজীবী চন্দন সরকারসহ ৭ জনকে নারায়ণগঞ্জ-ঢাকা লিংক রোডের খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়ামের সামনে থেকে অপহরণ করে র‌্যাব। তিন দিন পর ৩০ এপ্রিল ৬ জন ও ১ মে একজনের লাশ শীতলক্ষ্যা নদীতে ভেসে ওঠে। এ ঘটনায় পৃথক দুটি মামলা দায়ের করা হয় ফতুল্লা মডেল থানায়। প্রায় এক বছর তদন্ত শেষে দু’টি মামলায় চলতি বছরের ৮ এপ্রিল আদালতে অভিযোগপত্র দেয় মামলার তদন্ত স্ংস্থা জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। এতে নূর হোসেনসহ মোট ৩৫ জনকে আসামি করা হয়। এরমধ্যে র‌্যাব-১১ এর তখনকার অধিনায়ক লে. কর্নেল তারেক মোহাম্মদ সাঈদ, মেজর আরিফ ও লে. কমান্ডার এম এম রানাসহ ২৫জন এবং নুর হোসেন ও তার ৯ সহযোগি। ৩৫ জনের মধ্যে র‌্যাবের ৩ কর্মকর্তাসহ ২২ জন গ্রেপ্তার হয়ে কারাবন্দি হয়। নুর হোসেনসহ ১৩ জন পলাতক ছিল। এরমধ্যে ১২ নভেম্বর নুর হোসেনকে ভারতের কারাগার থেকে দেশে ফিরিয়ে আনা হয়। পরদিন ১৩ নভেম্বর নারায়ণগঞ্জের একটি আদালতে ১১টি মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে তাকে হাজির করা হয়। পরে আদালত তাকে জেল হাজতে পাঠায়। বাকী ১২ জন ধোরা ছোয়ার বাইরে। তাদের মধ্যে র‌্যাবের ৮জন এবং নুর হোসেনের ৪ সহযোগি রয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here