নির্বাচন কমিশন একতরফা আচরণ করছে : হানিফ

0
6

ঢাকা (বাংলা ২৪ বিডি নিউজ): নির্বাচন কমিশন একতরফা আচরণ করছে বলে অভিযোগ করেছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ।
আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার ধানমণ্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে সোমবার বিকেলে দলের পক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ অভিযোগ করেন।
বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার খ্রীষ্টান সম্প্রদায়ের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় অনুষ্ঠানে দেওয়া বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।
হানিফ বলেন, ‘রাজনৈতিক দল হিসেবে বিএনপি ক্ষমতার বাইরে আছে বিধায় তাদের প্রতি সহানুভূতি নিয়ে সরকার দলের প্রতি খড়গ হস্ত চালানোর কোনো যৌক্তিকতা আছে বলে আমরা মনে করি না।’
তিনি বলেন, ‘আমরা গত কয়েকদিনে দেখেছি, বিভিন্ন জায়গায় নির্বাচনী আচরণবিধি ভঙের অভিযোগে আওয়ামী লীগের প্রার্থী ও নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে নির্বাচন কমিশন শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নিয়েছে। যেটা অনেকটাই একতরফা হয়েছে। বিএনপি নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে অনেক অভিযোগ থাকা সত্ত্বেও এখন পর্যন্ত কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয় নাই। আমরা নির্বাচন কমিশনকে অনুরোধ করব, তারা যেন সবার প্রতি সমান আচরণ করেন।’
‘আন্দোলন নয়, নির্বাচনে সরকারকে ঘায়েল করতে হবে’ বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার এমন বক্তব্য প্রসঙ্গে মাহবুব-উল আলম হানিফ বলেন, ‘আন্দোলন করে সরকারের বিরুদ্ধে কিছু করার ক্ষমতা তাদের নেই। বহু আন্দোলন করে ব্যর্থ হয়ে সান্ত্বনার জন্য নির্বাচনের মাধ্যমে কিছু অর্জন করা যায় কিনা— সেটা খোঁজার চেষ্টা করছেন।’
তিনি বলেন, ‘আমার বিশ্বাস জনগণ যেভাবে তাদের আন্দোলন ব্যর্থ করেছে, তেমনি নির্বাচনে পরাজয় সুনিশ্চিত করে মনোভাব ব্যর্থ করে দেবে। বিএনপিকে ভোট দেওয়ার কোনো কারণ আছে বলে জনগণ মনে করে না। পেট্রোলবোমা, আগুনে পুড়িয়ে মানুষ হত্যা মানুষ দেখতে চায় না।’
হানিফ বলেন, ‘বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিএনপি নেতৃবৃন্দ সরকারের বিরুদ্ধে, দলের বিরুদ্ধে নানা মিথ্যাচার করে বিভ্রান্তি করার চেষ্টা করছেন। অনেক ক্ষেত্রেই তাদের বক্তব্য এবং আচরণ নির্বাচনী আচরণবিধি ভঙের শামিল হচ্ছে। আমাদের অনুরোধ থাকবে নির্বাচন কমিশনের প্রতি, নির্বাচনের লেভেল প্লেইং ফিল্ড বলতে যেটা বোঝায় সেটার জন্য নির্বাচন কমিশনকে আরও কঠোর পদক্ষেপ নিতে হবে।’
আওয়ামী লীগের এই নেতা বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী সম্পর্কে অশালীন ভাষায় খালেদা জিয়া কথা বলেছেন। কোনো সভ্য দেশে এ ধরনের ভাষা কেবল বেগম খালেদা জিয়ার মুখেই মানায়। বাংলাদেশের মানুষ মনে করেন, উনার এই বক্তব্যকে মানসিক ভারসাম্যহীন উম্মাদের প্রলাপ ছাড়া আর কিছুই নয়। দ্রুত তার চিকিৎসা করে সুস্থতা নিশ্চিত করা দরকার। আমরাও দোয়া করব, উনার সুস্থতার জন্য। কারণ একটি দলকে কেন্দ্রীয় পর্যায় থেকে নেতৃত্ব দিতে মানসিক সুস্থতা প্রয়োজন।’
সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন দলটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ডা. দিপু মনি, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, দফতর সম্পাদক ড. আবদুস সোবহান গোলাপ, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ, শ্রম বিষয়ক সম্পাদক হাবিবুর রহমান সিরাজ, স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক ডা. বদিউজ্জামান ভূইয়া ডাবলু, আব্দুল মান্নান খান প্রমুখ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here