প্রকাশ্য বিরোধে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ

0
5

ডেস্ক সংবাদ (বাংলা ২৪ বিডি নিউজ): দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গ ও ক্ষমতার লড়াইয়ে প্রকাশ্য বিরোধে জড়িয়ে পড়েছে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ। সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের বিরাজমান এ দ্বন্দ্ব এখন চরম আকার ধারণ করেছে। পাল্টাপাল্টি সভা করে একপক্ষ আরেকপক্ষকে কারণ দর্শানোর নোটিশসহ বহিষ্কারের হুমকি দিচ্ছে।

গত ৬ ডিসেম্বর সাধারণ সম্পাদক গ্রুপের বর্ধিত সভার এক দিন পরই ৮ ডিসেম্বর সভাপতির নেতৃত্বে জরুরী সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি ডা. সিদ্দিকুর রহমানের নেতৃত্বে মঙ্গলবার জ্যাকসন হাইটস জুইশ সেন্টারের ভেতরে যখন অনুষ্ঠিত হচ্ছিল সংগঠনের জরুরী সাধারণ সভা, ঠিক তখনই বাইরে অবস্থান নেয় সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদুর রহমান সাজ্জাদের পক্ষের একটি অংশ।

জ্যাকসন হাইটস জুইশ সেন্টারের এ সভাকে ঘিরে উত্তেজনাকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। বাইরে অপেক্ষমাণ সাজ্জাদ গ্রুপ এ সময় সিদ্দিক গ্রুপবিরোধী স্লোগান দিয়ে ভেতরে প্রবেশ করতে চাইলে পুলিশ এসে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এ সময় সভাপতির বিরুদ্ধে স্লোগান এবং জরুরী সভাকে অগঠনতান্ত্রিক বলে আখ্যা দেয় সাজ্জাদ গ্রুপ। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে হাজির হন এনওয়াইপিডি সদস্যরা। পাশাপাশি বাইরে অপেক্ষমাণদের অবস্থান ত্যাগে বাধ্য করা হয়। যদিও তখন জুইশ সেন্টারের ভেতরে সিদ্দিকুর রহমানের নেতৃত্বে অনুষ্ঠিত সভায় অংশ নেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের বিভিন্ন অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতারা।

এ সময় সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদুর রহমান সাজ্জাদ বলেন, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি এবং উনার স্ত্রী মিলে আমাদের সংগঠনকে ধ্বংস করে দিচ্ছেন। জামায়াত এবং বিএনপিপন্থীদের নিয়ে তিনি বৈঠক করেন, যেখানে আমার মতো সাধারণ সম্পাদকসহ অনেকেই প্রবেশ করতে পারেননি।

সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে সভা শেষে বিভিন্ন প্রস্তাবনার কথা তুলেন ধরে সাংগঠনিক সম্পাদক ফারুক আহমেদ (যাকে সাধারণ সম্পাদক গ্রুপরে পক্ষ থেকে রোববার বহিষ্কার করা হয়) বলেন, দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগসহ বিভিন্ন ইস্যুতে আমাদের বৈঠক হয়েছে। গঠনতান্ত্রিক নিয়মেই প্রথম যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক নিজাম চৌধুরী এবং সহ-সভাপতি মাহবুবুর রহমানকে বহিষ্কারের সুপারিশ আর সাধারণ সম্পাদককে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয়ার প্রস্তাবনা করা হয়েছে। সভাপতি দলের কেন্দ্র বারবর তা পাঠাবেন।

যদিও ডা. সিদ্দিকুর রহমান বলেন, আমরা অনেকগুলো সিদ্ধান্ত নিয়েছি, তা আপনারা পরে জানতে পারবেন। এ সময় সাধারণ সম্পাদকের কর্মকাণ্ডকে দলীয় গঠনতন্ত্রবিরোধী বলেও দাবি করেন সভাপতি।

এর আগে গত রোববার দলীয় সভাপতিকে ছাড়াই বর্ধিত সভার আয়োজন করেন সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদুর রহমান সাজ্জাদ এবং প্রথম যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক নিজাম চৌধুরীর পক্ষের নেতারা।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here