পাকিস্তান দূতাবাস ঘেরাওয়ের ঘোষণা

0
6

ঢাবি (বাংলা ২৪ বিডি নিউজ): বাংলাদেশি কূটনীতিক মৌসুমী রহমানকে বহিষ্কারের পরিপ্রেক্ষিতে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে উপযুক্ত ব্যবস্থা না নেওয়ায় বুধবার দেশটির দূতাবাস ঘেরাও কর্মসূচির ঘোষণা দিয়েছে গণজাগরণ মঞ্চ।

শাহবাগে বৃহস্পতিবার বিকেলে অনুষ্ঠিত এক বিক্ষোভ শেষে সমাবেশে গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র ডা. ইমরান এইচ সরকার এ ঘোষণা দেন।

ইমরানের অভিযোগ, ‘পাকিস্তান যেভাবে বাংলাদেশি কূটনীতিক মৌসুমী রহমানকে বহিষ্কার করেছে, সেটি পুরোপুরি শিষ্টাচারবহির্ভূত। এর কোনো ব্যাখ্যা পাকিস্তান দিতে পারেনি। আমরা পাকিস্তানকে উপযুক্ত জবাব দিতে সরকারকে ৭২ ঘণ্টার আলটিমেটাম দিয়েছিলাম। সরকার এর মধ্যে পাকিস্তানের ওই ধৃষ্টতার বিরুদ্ধে কোনোরকম ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি।’

তিনি বলেন, ‘পাকিস্তানি কূটনীতিক ফারিনা এর আগে বাংলাদেশে পাকিস্তানের দূতাবাসকে জঙ্গিবাদের কাজে ব্যবহার করেছিলেন। তাকে প্রমাণসহ বহিষ্কার করা হয়েছিল। যেহেতু আন্তর্জাতিক আইন অনুযায়ী কূটনীতিকের অপরাধের বিচার তার নিজ দেশে করার কথা, সেখানে বাংলাদেশ সরকারের উচিত ছিল ফারিনার উপযুক্ত বিচারের জন্য পাকিস্তানকে চাপ প্রয়োগ করা। কিন্তু সরকার তা করেনি।’

পাকিস্তান হাইকমিশন ঘেরাওয়ের ঘোষণা দিয়ে মঞ্চের মুখপাত্র ইমরান এইচ সরকার আরও বলেন, ‘আমরা সরকারকে বলেছিলাম, যত দিন পর্যন্ত পাকিস্তান ক্ষমা না চাইবে তাদের সঙ্গে আমাদের কোনোরকম সম্পর্ক রাখার দরকার নেই। কিন্তু তারা জনগণের কথা শোনেননি। তাই আমরা ২০ জানুয়ারি, বুধবার পাকিস্তানি দূতাবাস ঘেরাও করব।’

ইমরান বলেন, ‘বুধবার বিকাল ৩টায় গুলশান-২ এর গোলচত্বরে জমায়েত হয়ে সেখান থেকে পাকিস্তানি দূতাবাস ঘেরাও করবে গণজাগরণ মঞ্চ।’

‘২০ জানুয়ারির মধ্যে সরকার আশ্বস্ত করার মতো কোনো পদক্ষেপ নিতে পারলে কর্মসূচির ব্যাপারে পুনর্বিবেচনা করা হবে’ বলেও ঘোষণা দেন তিনি।

সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- মারুফ রসূল, খান আসাদুজ্জামান মাসুম, ইমরান হাবিব রুমন, ভাস্কর রাসা, শম্পা বসু প্রমুখ। সমাবেশ শেষে একটি মশাল মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি শাহবাগ থেকে শুরু হয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি ঘুরে পুনরায় শাহবাগে গিয়ে শেষ হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here