বাবাকে বাঁচাতে গিয়ে শিশু কণ্যা খুন

0
4

পটুয়াখালী (বাংলা ২৪ বিডি নিউজ): পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলায় জমি সংক্রান্ত বিরোধে প্রতিপক্ষ চাচা গ্রুপের  রোষানল থেকে বাবাকে বাচাতে এসে খুন হলেন সাত বছরের শিশুকন্যা সুইটি আকতার। রোববার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে বাউফল উপজেলার আদাবাড়িয়া ইউনিয়নের খাশের হাওলা গ্রামে এ হত্যাকাণ্ড ঘটে। এসময় গুরুতর আহত হয়েছে অন্তত পাঁচজন। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পটুয়াখালী মর্গে পাঠিয়েছে।
নিহতর পারিবারিক সুত্রে জানা গেছে, আদাবাড়িয়া ইউনিয়নের খাসের হাওলা গ্রামের হারুন মৃধার সঙ্গে চাচা হালিম মৃধার দীর্ঘদিন ধরে জমিসংক্রান্ত বিরোধ চলে আসছিল। রোববার ওই বিরোধ মীমাংসার জন্য স্থানীয়ভাবে সালিশ-বৈঠক হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু ঘটনার পূর্বে বিষয়টি নিয়ে উল্টো উভয় পক্ষের মধ্যে বাকবিতন্ডার সৃষ্টি হয়।
এসময় বিরোধের সঙ্গে জড়িত আমিন উদ্দিনের ছেলে শাহ আলম (৪০), শাহ জামালের ছেলে রেজাউল (৩০), হালিম মৃধার ছেলে নূর জামান (৩০) ও ছালাম মৃধা মিলে (৩৫) তাদের প্রতিপক্ষ হারুন মৃধাকে মারধর  শুরু করে। এসময় বাবাকে মারধর দেখে হারুন মৃধার শিশুকন্যা সুইটি এগিয়ে এসে তার বাবাকে জড়িয়ে ধরে। এসময় প্রতিপক্ষ গ্রুপ রামদা দিয়ে সুইটির মাথায় এলোপাথাড়ি কোপাতে থাকে। এসময় সুইটিকে বাঁচাতে এসে রশিদ মৃধা (৭২), আদাম আলী মৃধা (৫০),  সুইটির বাবা হারুন মৃধা (৩০) এবং নূরজাহান বেগম (৪৫) আহত হন। পরে স্থানীয়রা সুইটিকে উদ্ধার করে বাউফল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে এলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এ ঘটনায় সুইটির বাবা হারুন মৃধা বাদী হয়ে  চারজনকে আসামি করে বাউফল থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।
বাউফল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আ জ ম মাসুদুজ্জামান  জানান, আমি ঘটনাস্থলে গিয়েছিলাম। দ্রুত খুনিদের গ্রেফতার করা হবে বলে জানিয়েছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here