পাকিস্তানকে ৫ উইকেটে হারালো ভারত

0
4

ক্রীড়া ডেস্ক (বাংলা ২৪ বিডি নিউজ): মিরপুর শেরে বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে শনিবারের ভারত-পাকিস্তান লড়াই নিয়ে আলোচনা চলছিল বেশ কিছুদিন ধরেই। কিন্তু ম্যাচের শুরুতেই ক্রিকেটের ধ্রুপদি লড়াইয়ের মহারণ যেন একচেটিয়া নিয়ন্ত্রণে চলে যায় ভারতের। হার্দিক পান্ডে ও জাদেজার বোলিং তোপে পড়ে ৮৩ রানেই গুড়িয়ে যায় আফ্রিদির পাকিস্তান। ভারতের বিখ্যাত ব্যাটিং লাইনের সামনে এ লক্ষ্য মামুলিই। কিন্তু মিরপুরের দর্শক যখন একপেশে ম্যাচের ভাবনায় আগ্রহ হারিয়েছে, তখনই আমির ঝলক। প্রথম ওভারেই ভারতের দুটি উইকেটের পতন ঘটিয়ে উত্তেজনা ফিরিয়ে আনেন তিনি ম্যাচে। ইনিংসের তৃতীয় ওভারে এসে আরেকটি উইকেট নিয়ে জমজমাট লড়াইয়ের আভাসই দেন আমির। কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি পাকিস্তানের, ৫ উইকেটের বড় জয় নিয়েই মাঠ ছেড়েছে ভারত। আর এ নিয়ে দুই জয়ে এশিয়া কাপে সুবিধাজনক অবস্থায় রয়েছে ধোনিবাহিনী।

ম্যাচের শুরুতেই টসে জিতে পাকিস্তানকে ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানান ধোনি। আর অধিনায়কের সিদ্ধান্ত যথার্থ করতে ভারতের বোলাররাও যেন একসাথে জ্বলে ওঠেন। দুই প্রান্তের আক্রমণে শুরুতেই হেয় হারিয়ে ফেলে পাকিস্তান। ইনিংসের চতুর্থ বলেই দলীয় চার রানে আশীষ নেহারার বলে ধোনির তালুবন্দি হন পাকিস্তানের ওপেনার মোহাম্মদ হাফিজ। দুই ওভার শেষে পাকিস্তানের সংগ্রহ ছিল ১ উইকেটে ৭ রান।

প্রথম উইকেটের পতনের পর শারজিল খান ও খুররম মনজুর জুটি বেঁধে দলকে এগিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করলেও বেশিদূর যেতে পারেননি। ৩.৩ ওভারে দলীয় ২২ রানে ব্রুমরাহ এর বলে আজিঙ্কা রাহানের তালুবন্দি হয়ে শারজিল খান সাজঘরে ফিরে যান। আর ৫.৫ ওভারে খুররম মনজুরও রান আউটের শিকার হন, পাকিস্তানের সংগ্রহ তখন ৩ উইকেটে ৩২ রান। দলীয় সংগ্রহে আর ৩ রান যোগ হতেই আউট হয়ে যান শোয়েব মালিক, ৬.৬ ওভারে পান্ডের বলে ধোনিকে ক্যাচ দিয়েছেন তিনি। পরের বলেই যুবরাজ সিংয়ের এলবিডব্লিউ এর শিকার হন উমর আকমল। ৭.১ ওভারে পাকিস্তানের সংগ্রহ দাঁড়ায় ৫ উইকেটে ৩৫ রান। আর এ ওভারেরই শেষ বলে রান আউট হন পাকিস্তান অধিনায়ক শহীদ আফ্রিদি, দলীয় সংগ্রহ তখন ৬ উইকেটে ৪২ রান। পরে ১১.৪ ওভারে দলীয় ৫২ রানে আউট হন ওয়াহাব রিয়াজ।

ম্যাচের এমন পরিস্থিতিতে সরফরাজ আহমেদ ও মোহাম্মদ সামি ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করলেও তা দীর্ঘস্থায়ী হয়নি। দলীয় সংগ্রহে ১৮ রান যোগ করার পর বিদায় নেন সরফরাজ। শেষপর্যন্ত ১৭.৩ ওভারে ৮৩ রানে অলআউট হয়ে যায় পাকিস্তান। দলের পক্ষে সরফরাজ ২৫ ও খুররম মনজুর ১০ রান করেছেন। আর ভারতের পক্ষে হার্দিক পান্ডে ৩টি ও জাদেজা ২টি উইকেট নিয়েছেন।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ভাল হয়নি ভারতেরও। পাকিস্তানের মত প্রথম ওভারেই উইকেট হারিয়েছে তারা, একটি নয়; দুটি। পাকিস্তান ইনিংসের চতুর্থ বলেই ৪ রানে উইকেট হারিয়েছিল, আর ভারত উইকেট হারিয়েছে ইনিংসের দ্বিতীয় বলে; ০ রানে। ভারতের ওপেনার রুহিত শর্মা পেসার মোহাম্মদ আমিরের এলবিডব্লিউ এর শিকার হন। আর চতুর্থ বলে আমিরের এলবিডব্লিউ এর শিকার হন আজিঙ্কা রাহানে, দলের সংগ্রহ তখন ২ রান। নিজের দ্বিতীয় ওভারে এসে আবার ভারতীয় ব্যাটিং অর্ডারে তোপ দাগেন আমির। ২.৪ ওভারে আমিরের বলে ওয়াহাব রিয়াজের ক্যাচে পরিণত হন সুরেশ রায়না। দলের সংগ্রহ তখন ৩ উইকেটে ৮ রান।

তবে শুরুর এ বিপদ কাটিয়ে ওঠতে দেরি করেনি ভারত। বিরাট কোহলি ও যুবরাজ সিংয়ের জুটিতে ম্যাচের নিয়ন্ত্রন নেয় ধোনিবাহিনী। ১৪.১ ওভারে কোহলিকে আউট করে ৬৮ রানের জুটি ভাঙ্গেন মোহাম্মদ সামি। তবে কোহলির ৪৯ রানে আউট হয়ে হাফসেঞ্চুরি মিস করার হতাশা থাকলেও দল জয় পেতে বেগ পায়নি। যুবরাজ সিং ও ধোনি ১৫.৩ ওভারেই ৫ উইকেট হাতে রেখে দলকে জিতিয়ে মাঠ ছাড়েন।

এ নিয়ে টি২০ ক্রিকেটের ৭ বারের মুখোমুখিতে পাকিস্তানের বিপক্ষে ৬ষ্ঠ জয় পেল ভারত, যেখানে পাকিস্তান জিতেছে ১ বার।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here