‘ধামাচাপা দিতে হ্যাকিংয়ের ঘটনা পর্ষদে তোলেনি বাংলাদেশ ব্যাংক’

0
5

স্টাফ রিপোর্টার (বাংলা ২৪ বিডি নিউজ): বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ থেকে ৮০০ কোটি টাকা হাতিয়ে নেওয়ার ঘটনার বিষয়ে অবহিত নয় সরকার। বিষয়টি ধামাচাপা দিতে ব্যাংকের দুটি পর্ষদ সভায় বিষয়টি উপস্থাপন করেনি বাংলাদেশ ব্যাংক। বাংলাদেশ ব্যাংকের এ রকম আচরণে নাখোশ অর্থ মন্ত্রণালয়।

রবিবার দুপুরে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সঙ্গে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সচিব ড. এম আসলামুল আলম বলেন, রিজার্ভের অর্থ খোয়া যাওয়ার বিষয়টি জানতে এসেছি। এর আগে বাংলাদেশ ব্যাংকের দুটি বোর্ড সভায় (২৮ ফেব্রুয়ারি ও ১ মার্চ) বিষয়টি উপস্থাপনই করেনি অডিট কমিটি। কেন এমনটি করা হয়েছে তা খতিয়ে দেখা হবে। আমি বিষয়গুলো অর্থমন্ত্রীর কাছে উপস্থাপন করবো। গভর্নর ফিরলে পরশু (মঙ্গলবার) বিষয়টি জরুরি বোর্ড সভা বসতে বাংলাদেশ ব্যাংককে অনুরোধ করেছি।

আসলাম আলম বলেন, বাংলাদেশ ব্যাংকের পক্ষ থেকে এখন পর্যন্ত কোনো তদন্ত কমিটি করা হয়নি। ব্যাংকের ফিন্যান্সিয়াল সেক্টর সাপোর্ট প্রোগ্রামের আওতায় বিষয়টির উপর কাজ চলছে। বাংলাদেশ ব্যাংকের পক্ষ থেকে ইতোমধ্যে ফরেন্সিক এক্সপার্ট নিয়োগ করেছে। বাংলাদেশ ব্যাংকের সব কম্পিউটারসহ পুরো সিস্টেম পরীক্ষা-নিরীক্ষা করছে তারা। এ কাজের রিপোর্ট পেতে বেশ সময় লাগবে।

এম আসলাম বলেন, প্রাথমিক তদন্তে বাংলাদেশ ব্যাংকের আইটির দুর্বলার বিষয়টি উঠে এসেছে। এতে কোনো সন্দেহ নেই যে, বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রযুক্তিগত নিরাপত্তা ব্যবস্থার ঘাটতি থাকার কারণেই এমনটি হয়েছে। এক্ষেত্রে পুরো সিস্টেমে দুর্বলতাসহ দক্ষ জনবলের অভাব ছিল। যারা আছে তাদেরকে সেভাবে প্রশিক্ষিত করা হয়নি।

তিনি বলেন, হ্যাকিং এর মাধ্যমে মোট ৯৫১ মিলিয়ন ডলার চুরি চেষ্টা হয়েছিল। প্রকৃত চুরির পরিমাণ ৮১ মিলিয়ন ডলার। এর মধ্যে ৬৮ হাজার ডলার ফেরত পাওয়া গেছে। ফেরত পাওয়া অর্থ ইতোমধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল রিজার্ভে বাংলাদেশ ব্যাংকের অ্যাকাউন্টে জমা হয়েছে। বাকি অর্থ প্রসেস হয়ে ব্যাংকিং সিস্টেমের বাইরে চলে গেছে।

প্রসঙ্গত, গত বুধবার ফিলিপাইনের পত্রিকা ইনকোয়ারারের প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, নিউ ইয়র্কের ফেডারেল রিজার্ভে গচ্ছিত বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ থেকে প্রায় ১ বিলিয়ন মার্কিন ডলার হাতিয়ে নিতে চেয়েছিল হ্যাকাররা। এ প্রচেষ্টায় দুই ধাপে প্রায় ১০১ মিলিয়ন ডলার লোপাট করলেও ৮৭০ মিলিয়ন ডলার পাচারে ব্যর্থ হয় তারা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here