বিএনপি আপাতত ইউপি নির্বাচনে থাকছে

0
5

ঢাকা (বাংলা ২৪ বিডি নিউজ): প্রথম দুটি ধাপে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন হয়ে যাওয়ার পর এতে সৃষ্ট ‘সহিংসতা’ এবং ‘সরকারের প্রভাব বিস্তারের’ বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে নির্বাচনে থাকা-না থাকার সিদ্ধান্ত নিতে সময় নিচ্ছে বিএনপি।

নির্বাচন থেকে সরে আসার বিষয়ে- দলের শীর্ষ নেতাদের বড় অংশের নেতিবাচক মনোভাবের পরও আপাতত তৃতীয় ধাপের ইউপি নির্বাচন পর্যবেক্ষণ করতে চায় দলটি। এরপরে নির্বাচনে থাকা-না থাকার বিষয়ে নিজেদের সার্বিক অবস্থান জানাতে গণমাধ্যমের সামনে আসতে পারে দলটি। সেক্ষেত্রে বাকি ধাপগুলো থেকে সরে আসারও সিদ্ধান্তে আসতে পারে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের প্রধান রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ এই দল।

রোববার বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সঙ্গে জ্যেষ্ঠ নেতাদের বৈঠকে এ বিষয়ে ব্যাপক আলোচনা হয়েছে। ইউপি নির্বাচনে বিএনপি থাকবে কি না- সেটিই ছিল বৈঠকের মূল এজেন্ডা। এতে দলের নেতারা এ বিষয়ে নিজেদের মত ও যুক্তি দেন। নির্বাচনের থাকার পক্ষে- বিপক্ষে মত আসে। তবে নির্বাচনে না থাকার পক্ষেই বেশির ভাগ নেতা নিজেদের যুক্তি ও বক্তব্য দেন।

বৈঠকে বড় একটি অংশই নির্বাচনের সার্বিক চিত্র তুলে ধরে এই নির্বাচনে থাকার যথার্থতা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন। তবে ক্ষুদ্র অংশের মত ছিল, তৃণমূল নেতাকর্মীকে রাজনীতির মাঠে রাখতে হলে নির্বাচন বর্জন করা যাবে না।

বিএনপি নির্বাচনে থাকবে কি না- এ বিষয়ে দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, আপাতত ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচন বর্জন নয়। তবে পরবর্তী ধাপের নির্বাচন পর্যালোচনা করবেন তারা।

তিনি বলেন, ‘যদিও আমরা জানি এ নির্বাচন একটি প্রহসনের নির্বাচনে পরিণত হয়েছে। এ নির্বাচনে আমাদের বিশ্বাস আরও দৃঢ় হয়েছে- বর্তমান সরকার ও নির্বাচন কমিশনের অধীন কখনো নির্বাচন সুষ্ঠু ও অবাধ হবে না। তারপরও আমরা দেখতে চাই, এই নির্বাচন কমিশন কতটা খারাপ ও অযোগ্য হতে পারে। তারা রাষ্ট্র ও জনগণের সঙ্গে কতটা প্রতারণা করতে পারে।’

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শাহ মোয়াজ্জেম হোসেন বলেন, ‘এটা কি ভোট হয়েছে? এটা ভোট না, এটা ভোট না, এটা বোট (নৌকা)।’

ইউপি নির্বাচনের প্রথম ও দ্বিতীয় ধাপের ভোট হয়ে যাওয়ার কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘তৃতীয়, চতুর্থ, পঞ্চম ধাপের নির্বাচন সামনে। আমার মনে হয়, ইট ইজ হাই টাইম।

‘এই নির্বাচনকে আমাদের তরফ থেকে বর্জন করা উচিৎ। এই নির্বাচন এভাবে আর করা ঠিক হবে না। আমাদের প্রতীককে অপমান করা হচ্ছে, ধানের শীষকে অপমান করা হচ্ছে।’

বিএনপির নীতি-নির্ধারকদের উদ্দেশে শাহ মোয়াজ্জেম বলেন, ‘আমি অনুরোধ করব আমাদের দলের নীতি-নির্ধারকদের, যেটা গেছে, গেছে। এদের কাছ থেকে নির্বাচন চান? এদের কাছ থেকে ভোট চান? এরা ভোট দেবে না। এবার নির্বাচন প্রত্যাখ্যান করুন।’

স্থানীয় সরকারের তৃণমূলের এই নির্বাচন এবারই প্রথমবারের মতো দলীয় প্রতীকে অনুষ্ঠিত হচ্ছে। দশম সংসদ বর্জনকারী বিএনপি নেতাদের অভিযোগ- এটা ভোটের নামে তামাশা করছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

মোট ছয় ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে এরই মধ্যে প্রথম দুই ধাপের নির্বাচন হয়ে গেছে। এতে সহিংসতায় মারা গেছেন ৪২ জন। তৃতীয় ধাপে ২৩ এপ্রিল ভোট হবে ৬৫০ ইউপিতে। এরপর চতুর্থ ধাপে ৭ মে সাত শতাধিক ইউপিতে, পঞ্চম পর্বে ২৮ মে ৭১৪ ইউপিতে এবং ৪ জুন ষষ্ঠ ও শেষ পর্বে ভোট হবে বাকি ইউপিতে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here