পদ্মা-মেঘনার ৮০ শতাংশ সিলিন্ডার ঝুঁকিপূর্ণ

0
4

বগুড়া (বাংলা ২৪ বিডি নিউজ) : বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশনের (বিপিসি) নিয়ন্ত্রণাধীন পদ্মা ও মেঘনা কোম্পানির সরবরাহকারীদের এলপিজি গ্যাসের ৮০ শতাংশ সিলিন্ডারই ব্যবহারের অনুপযোগী। ঝুঁকিপূর্ণ এসব সিলিন্ডার বাড়িতে ব্যবহার করলে দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। বগুড়ায় বিপিসির ডিপোতে বিস্ফোরণের ঘটনা তদন্ত করতে গিয়ে এ কথা জানান বিভাগীয় বিস্ফোরক পরিদর্শক মো. আসাদুল ইসলাম। গুদামের বেশ কয়েকটি সিলিন্ডারের মুখে পানি ভরে পরীক্ষা করার পর তিনি এ কথা বলেন।
আসাদ বলেন, বগুড়ায় বিপিসির গুদামে মজুদ পদ্মা অয়েল কোম্পানির বেশকিছু এলপিজি (লিক্যুফাইড পেট্রোলিয়াম গ্যাস) গ্যাসের সিলিন্ডারের মুখে পানি ভরে দেখা গেছে, ৮০ শতাংশ সিলিন্ডারের মুখ দিয়ে অনর্গল গ্যাসের বুদবুদ বের হচ্ছে। একইভাবে গ্যাস বের হচ্ছে মেঘনা পেট্রোলিয়ামের ৭৫ শতাংশ সিলিন্ডার থেকে। তবে ডিপোতে গ্যাসভর্তি সিলিন্ডার না থাকায় যমুনা অয়েল কোম্পানির সিলিন্ডারের মান নিরূপণ করা সম্ভব হয়নি। রাজশাহীর বিস্ফোরক পরিদর্শকের কার্যালয় থেকে আসা এই কর্মকর্তা বলেন, ৩টি কোম্পানি থেকে বগুড়া ডিপোতে প্রতি দফায় ১ হাজার ৮০০ গ্যাসভর্তি সিলিন্ডার বরাদ্দ দেয়া হয়। প্রতি মাসে ৩ দফায় গড়ে প্রায় ৫ থেকে সাড়ে ৫ হাজার এলপিজি গ্যাসের সিলিন্ডার আসে এই ডিপোতে। এসব সিলিন্ডারের ৮০ শতাংশই ব্যবহার অনুপযোগী। ঝুঁকিপূর্ণ এসব বিস্ফোরণে যে কোনো বড় দুর্ঘটনা ঘটতে পারে।
আসাদ বলেন, ৩টি প্রতিষ্ঠানকেই পেট্রোবাংলা বাংলার প্ল্যান্ট থেকে সিলিন্ডার এলপিজি গ্যাস সরবরাহ করা হয়। এসব সিলিন্ডার বাতিল করে নতুন সিলিন্ডার সরবরাহের দায়িত্বও পেট্রোবাংলারই। এসব সিলিন্ডার বাতিল ঘোষণার সুপারিশ করে জ্বালানি মন্ত্রণালয়ে দুই-একদিনের মধ্যে চিঠি পাঠানো হবে। ঘটনা তদন্তে গতকাল রোববার পেট্রোবাংলা ও পদ্মা অয়েল কোম্পানির উচ্চপর্যায়ের দুটি দল বগুড়ার ডিপো পরিদর্শনে যান।
ডিপোতে দায়িত্বে থাকা পদ্মা অয়েল কোম্পানির অফিস সহকারী আশরাফুজ্জামান গতকাল সকাল সাড়ে ১১টার দিকে বলেন, গত শনিবার বগুড়া শহরতলীর বনানী লিচুতলা এলাকায় বিপিসির আঞ্চলিক ডিপোতে ট্রাক থেকে সিলিন্ডার নামানোর সময় বিস্ফোরণে কোম্পানির সরবরাহ করা ৩৭৮টি সিলিন্ডারের মধ্যে মোট ১৯৩টি সিলিন্ডার আগুনে পুড়ে ছাই হয়েছে। বিস্ফোরণে ২০-২২টি সিলিন্ডার উড়ে গেছে। ডিপো কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, পদ্মা, মেঘনা ও যমুনা অয়েল কোম্পানির মাধ্যমে বিপিসির বগুড়া আঞ্চলিক ডিপো থেকে উত্তরাঞ্চলের ১৪ জেলার ৫৫০ জন পরিবেশক ভোক্তা পর্যায়ে এলপিজি গ্যাস সরবরাহ করে। এসব গ্যাস সিলেটের রূপান্তরিত প্রাকৃতিক গ্যাস ফিল্ড থেকে বোতলজাত হয়ে সিলিন্ডারের মাধ্যমে বগুড়া আঞ্চলিক ডিপোতে আসে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here