আজ: রবিবার, ২২শে জুলাই, ২০১৮ ইং, ৭ই শ্রাবণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, বর্ষাকাল, ১০ই জিলক্বদ, ১৪৩৯ হিজরী, সকাল ৯:১৯

প্রধানমন্ত্রীর গণঅভ্যর্থনায় জনতার ঢল, সংবর্ধনা রূপ নিল উৎসবে

ঢাকা (বাংলা ২৪ বিডি নিউজ) : ব্যাপক শোডাউনের প্রস্তুতির কথা জানানো হয়েছিল আগেই। নেতাকর্মীদের ঢল নামবে রাজপথে তাও ছিল প্রত্যাশিত। তবে ধারণার চেয়েও বর্ণাঢ্য আয়োজনে আওয়ামী লীগের গণসংবর্ধনা রূপ নেয় উৎসবে। কানাডা ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ১৭ দিনের সফর শেষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গতকাল শুক্রবার দেশে ফেরার পর নজিরবিহীন সংবর্ধনায় বরণ করে নিয়েছে আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা। সন্ধ্যা ৬টা ৪২ মিনিটে প্রধানমন্ত্রীকে বহনকারী বিমানটি হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে। প্রায় দেড় ঘণ্টা বিলম্বে প্রধানমন্ত্রীকে বহন করা বিমানটি অবতরণ করে। বিমানবন্দরে প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানান মন্ত্রিসভার সদস্য এবং আওয়ামী লীগের জ্যেষ্ঠ নেতারা। বিমানবন্দরে বোর্ডিং ব্রিজেই শেখ হাসিনাকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম ও যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহাবুব-উল আলম হানিফ। বিমানবন্দরে এ সময় দলটির শীর্ষ নেতা আমির হোসেন আমু, তোফায়েল আহমদ, শেখ ফজলুল করিম সেলিম, ইঞ্জিনিয়ার মোশাররাফ হোসেন, মহীউদ্দীন খান আলমগীর, ওবায়দুল কাদের, দীপু মনি, ফারুক খান, মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া, আসাদুজ্জামান নূর, এ বি তাজুল ইসলাম, আবদুর রাজ্জাক, সাহারা খাতুন, এ কে এম রহমতউল্লাহ, কামরুল ইসলাম, আবদুস শহীদ, আবদুর রহমান, আব্দুল মান্নান, মুজিবুল হক, আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল, তারানা হালিম, মেহের আফরোজ চুমকি, ইসমত আরা সাদেক, হাবিবুর রহমান খান সিরাজ, নাহিম রাজ্জাক প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। এ সময় তারা প্রধানমন্ত্রীর হাতে ফুল তুলে দেন এবং কুশল বিনিময় করেন। সেখান থেকে সন্ধ্যা সোয়া ৭টার দিকে গণভবনের উদ্দেশে রওনা হয় প্রধানমন্ত্রীর গাড়িবহর। এ সময় সড়কের দু’পাশে অবস্থান নেয়া হাজারো নেতাকর্মী স্লোগানে স্লোগানে তাকে অভ্যর্থনা জানান। রাজপথে প্রবেশের সঙ্গে সঙ্গে নেতাকর্মীদের ফুলেল শুভেচ্ছায় সিক্ত হন তিনি।
পথে-পথে নেতাকর্মীদের ফুলেল শুভেচ্ছা ও উষ্ণ অভ্যর্থনা গ্রহণ করতে করতে ৭টা ৩৩ মিনিটে গণভবনে পৌঁছান তিনি। গণভবনের (মূলভবন) ফটকে প্রধানমন্ত্রীকে ফুল দিয়ে অভ্যার্থনা জানান রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা। এ সময় তিনি প্রধানমন্ত্রীকে রবীন্দ্র সংগীত ‘আজই বাংলাদেশের হৃদয় হতে কখন আপনি, তুমি এই অপরূপ রূপে বাহির হলে জননী। ওগো মা, তোমায় দেখে দেখে আখি না ফিরি’ গানের কয়েকটি পঙক্তি গেয়ে শোনান। সেখানে ঢাবি উপাচার্য আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি নাসির উদ্দীন ইউসুফ, নৃত্যুশিল্পী শামীম আরা নিপা, শিবলি মাহমুদ, নাট্যশিল্পী রামেন্দ্র মজুমদার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতাদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক, সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী ও আবু সাইদ আল মাহমুদ স্বপন, কেন্দ্রীয় সদস্য মির্জা আজম প্রমুখ। সেখানে অভ্যার্থনার সময় প্রধানমন্ত্রী সবার সঙ্গে কুশল বিনিময় করেন। এরপর তিনি গণভবনের দোতলায় চলে যান।
প্রিয় নেত্রী আসবেন, তাই তাকে শুভেচ্ছা জানাতে কি ছিল না! হাতি, ঘোড়া, বাদ্যযন্ত্র, ফুল সবকিছুর আয়োজন ছিল। বাদ্যযন্ত্র তো বেজেই চলেছে অবিরাম। দুপুর গড়িয়ে সন্ধ্যা, অবশেষে নেত্রীকে শুভেচ্ছা জানাতে পেরে খুশি নেতাকর্মীরা। দুপুরের প্রখর রোদ উপেক্ষা করে সন্ধ্যা পর্যন্ত বিমানবন্দর এলাকায় বিপুলসংখ্যক নেতাকর্মী ও সমর্থক উপস্থিত হন। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও সজীব ওয়াজেদ জয় সম্বলিত নানা ধরনের ব্যানার, ফেস্টুন ও রঙ-বেরঙের প্ল্যাকার্ড নিয়ে আসেন তারা। নেতাকর্মীদের ভিড় ঠেলে প্রধানমন্ত্রীর গাড়ি বহর যখন থেকে এগিয়ে যাচ্ছিল রাস্তার দুইপাশে সারিবদ্ধভাবে দাঁড়িয়ে ‘শেখ হাসিনা, শেখ হাসিনা’ স্লোগানে মুখরিত হয়ে ওঠে। নেতাকর্মীদের ভালোবাসায় সিক্ত হন প্রধানমন্ত্রী। দলীয় সূত্রে জানা যায়, সংবর্ধনা সফল করতে বিমানবন্দর থেকে গণভবন পর্যন্ত ৮টি পয়েন্ট নির্ধারণ করা হয়। আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য অ্যাডভোকেট সাহারা খাতুনের নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ ও সর্বস্তরের জনগণ সংবর্ধনা দেন বিমানবন্দর থেকে খিলক্ষেত এলাকায়। কামাল আহমেদ মজুমদার এমপি ও এ কে এম রহমতউল্লাহ এমপি খিলক্ষেত থেকে কুড়িল ফ্লাইওভার পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রীকে দেয়া সংবর্ধনায় নেতৃত্ব দেন। এদিকে, কুড়িল ফ্লাইওভার থেকে হোটেল রেডিসন পর্যন্ত ছিলেন আসলামুল হক আসলাম এমপি ও ইলিয়াছ উদ্দিন মোল্লা এমপি। হোটেল রেডিসন থেকে চেয়ারম্যান বাড়ী, মহাখালী ফ্লাইওভার এলাকায় ছিলেন বনানী, গুলশান থানা আওয়ামী লীগ, সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ এবং সর্বস্তরের জনগণ। মহাখালী ফ্লাইওভার থেকে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় পর্যন্ত ছিলেন জাহাঙ্গীর কবির নানক এমপি ও আসাদুজ্জামান খান কামাল এমপি। এছাড়া, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সামনে কেন্দ্রীয় ১৪ দল, ঢাকা মহানগর ১৪ দল, স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ, ডাক্তার ও নার্সরা উপস্থিত ছিলেন। গতকাল বিকেলে বিমানবন্দর থেকে গণভবন পর্যন্ত সড়ক ঘুরে দেখা যায়, বেলা ৩টার পর থেকেই রাজধানীর বিভিন্ন থানা, ওয়ার্ড ও মহল্লা থেকে ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মীরা প্রধানমন্ত্রীকে গণসংবর্ধনা ও স্বাগত জানাতে রাস্তার দু’পাশে অবস্থান নিয়েছেন। ব্যানার -ফেস্টুন হাতে সারিবদ্ধভাবে দাঁড়িয়ে তারা বিভিন্ন স্লোগান দিচ্ছেন। আবার অনেক নেতাকর্মীকে মোটরসাইকেলে এবং ট্রাকে রাস্তায় শোডাউনও দিতে দেখা যায়।
বনানী : প্রধানমন্ত্রীর আগমন উপলক্ষে বনানী থেকে মহাখালী পর্যন্ত রাস্তা ফাঁকা থাকতে দেখা যায়। তবে রাস্তার দু’পাশে পুলিশি নিরাপত্তার সঙ্গে আওয়ামী লীগসহ এর অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীদের বিভিন্ন প্লাকার্ড হাতে দাঁড়িয়ে আছেন। সংবর্ধনা জানাতে বনানীতে গুলশান থানা আওয়ামী লীগ, জাতীয় শ্রমিক লীগ, ঢাকা মহানগর উত্তর স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতাকর্মীরা অংশ নিয়েছেন।
কুড়িল বিশ্বরোড : সেখানে রাস্তার দু’পাশে ব্যানার-ফেস্টুনসহ ক্ষমতাসীন দল ও এর অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা প্রধানমন্ত্রীকে সংবর্ধনা দিতে অপেক্ষা করছেন। এ সময় বদ্যযন্ত্রের তালে-তালে ‘জয় বাংলা’ স্লোগানে মুখরিত হয় সড়কের দুইপাশ।
বিমানবন্দর : প্রধানমন্ত্রীকে সংবর্ধনা দিতে বেলা সোয়া ৪টার দিকে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে বিমানবন্দরে ছুটে এসেছেন আওয়ামী লীগ ভক্ত ও সমথর্করা। হাজার-হাজার মানুষের ভিড়ে এ সময় ঢাকা থেকে টঙ্গীমুখী সিমিত আকারে যান চলাচল করতে দেখা যায়। অপরদিকে, টঙ্গী থেকে ঢাকামুখী যান চলাচল বন্ধ রয়েছে।
বিজয় সরণি : বিজয় সরণি থেকে গণভবন পর্যন্ত বিপুল সংখ্যক আওয়ামী লীগ নেতাকর্মী প্রধানমন্ত্রীর আগমনের অপেক্ষায় প্রহর গুণছেন। তারা ঢাক-ঢোল বাজিয়ে এবং ব্যানার ফেস্টুন নিয়ে আনন্দে মেতেছেন। অপরদিকে, খামারবাড়ি থেকে মিরপুর সড়কে যান চলাচল বন্ধ রয়েছে। এ সময় রাস্তার একপাশে তীব্র যানজট দেখা যায়।
উল্লেখ্য, গত ১৪ সেপ্টেম্বর কানাডা ও যুক্তরাষ্ট্রে গ্লোবাল ফান্ড সম্মেলন ও জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের সভায় যোগ দিতে ঢাকা ছাড়েন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ঈদুল আজহার একদিন পর রওনা হয়ে প্রথমে কানাডা যান প্রধানমন্ত্রী। মন্ট্রিয়ালে ‘ফিফথ রিপ্লেসমেন্ট কনফারেন্স অব দ্য গ্লোবাল ফান্ড (জিএফ)’-এ অংশগ্রহণ এবং কানাডার প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠকের পর ১৮ সেপ্টেম্বর তিনি নিউইয়র্ক যান। জাতিসংঘে সাধারণ পরিষদে ভাষণ দেন শেখ হাসিনা। তিনি দক্ষতার সঙ্গে রাষ্ট্র পরিচালনা ও বহুমাত্রিক অবদানস্বরূপ জাতিসংঘ পদক ‘প্লানেট ৫০-৫০ চ্যাম্পিয়ন’ ও ‘এজেন্ট অব চেঞ্জ অ্যাওয়ার্ড’-এ ভূষিত হন। ২৬ সেপ্টেম্বর তার দেশে ফেরার কথা থাকলেও পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কিছু সময় কাটানোর জন্য তা পরিবর্তন হয়। নিউইয়র্ক থেকে ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয়ের বাড়ি ভার্জিনিয়ায় যান তিনি। গত বুধবার সেখানেই ছেলে, পুত্রবধূ ও নাতনীর সঙ্গে নিজের জন্মদিন কাটে শেখ হাসিনার। জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭১তম অধিবেশনে ভাষণে বাংলাদেশ ও তার সরকারের সফলতার বিভিন্ন দিক তুলে ধরার পাশাপাশি সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদসহ অন্য সব সংকট মোকাবেলায় বিশ্ববাসীকে একযোগে কাজ করার আহ্বানও জানান তিনি। সেখানে বিভিন্ন দেশের সরকারপ্রধান, রাজনীতিক, আন্তর্জাতিক সংগঠনের কর্মকর্তা ও সামাজিক প্রতিষ্ঠান নেতাদের সঙ্গে বৈঠকও করেন তিনি।

Share

Author: ikbal sarwar

1492 stories / Browse all stories

Related Stories »

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ফেসবুকে আমরা »

ছবি সংবাদ »

নিউজ আর্কাইভ »

MonTueWedThuFriSatSun
      1
2345678
9101112131415
16171819202122
23242526272829
3031     
    123
45678910
11121314151617
18192021222324
252627282930 
       
 123456
78910111213
14151617181920
21222324252627
28293031   
       
      1
2345678
9101112131415
16171819202122
23242526272829
30      
   1234
567891011
12131415161718
19202122232425
262728293031 
       
   1234
12131415161718
262728    
       
1234567
891011121314
15161718192021
22232425262728
293031    
       
    123
45678910
18192021222324
25262728293031
       
  12345
27282930   
       
      1
2345678
9101112131415
16171819202122
23242526272829
3031     
    123
11121314151617
252627282930 
       
 123456
28293031   
       
     12
3456789
10111213141516
24252627282930
31      
   1234
567891011
12131415161718
19202122232425
2627282930  
       
1234567
891011121314
15161718192021
22232425262728
293031    
       
     12
17181920212223
24252627282930
       
  12345
2728     
       
      1
23242526272829
3031     
   1234
262728293031 
       
   1234
12131415161718
       
      1
3031     
29      
       
      1
16171819202122
30      
   1234
12131415161718
19202122232425
262728293031 
       
 123456
78910111213
14151617181920
21222324252627
282930    
       
     12
17181920212223
24252627282930
31      
  12345
6789101112
13141516171819
20212223242526
       
     12
3456789
10111213141516
17181920212223
2425262728  
       
  12345
6789101112
13141516171819
20212223242526
2728293031  
       

সবশেষ সংবাদ »

সারাদেশ »