জঙ্গিবাদ দিয়ে ইসলাম কায়েম হয় না : শিক্ষামন্ত্রী

0
3

বরিশাল (বাংলা ২৪ বিডি নিউজ) : জঙ্গিবাদের মধ্য দিয়ে ইসলাম কায়েমের কোনো পথ নেই। যারা এভাবে ইসলাম কায়েম করতে চায় তারা অন্ধ। এদের জন্য ইসলাম ধর্ম সম্পর্কে বিভ্রান্তি ছড়াবে বিশ্বজুড়ে। তারপরও একটি গোষ্ঠী দেশের মেধাবী তরুণদের ইসলাম কায়েম এবং বেহেস্তে যাওয়ার বিভ্রান্তিমূলক তথ্য দিয়ে তাদের জঙ্গিবাদে লিপ্ত করছে। ‘শিক্ষার উন্নত পরিবেশ, জঙ্গিবাদমুক্ত শিক্ষাঙ্গন’ শীর্ষক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ।
শনিবার (১ অক্টোবর) বেলা সাড়ে ১১টায় শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে এবং বরিশাল মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের ব্যবস্থাপনায় সরকারি ব্রজমোহন কলেজের বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর অডিটরিয়ামে এই সভা অনুষ্ঠিত হয়।
এ সময় শিক্ষা মন্ত্রী আরো বলেন, আমাদের দেশে জঙ্গিবাদ করে বিদেশিদের টার্গেট করে মেরে ফেলা হচ্ছে। এর কারণ হলো আমাদের দেশের মানুষ যাতে করে দেশের বাইরে কোথাও শিক্ষা গ্রহণ, চিকিৎসাসেবা নিতে না পারে। বিদেশি বিনিয়োগকারীরা যাতে নিরুৎসাহিত হয় এ দেশে আসতে। এ ছাড়া বিশেষ করে এতে দেশের অর্থনৈতিক দিকে একটি বিশেষ প্রভাব পড়বে। এই জঙ্গির মদদদাতারা ইসলামের পক্ষে নয়, দেশের অর্থনৈতিক ধ্বংসের জন্য কাজ করছে। যারা বোমা হামলা করছে তারা নিজেরাই জানে না তাদের বন্ধু কারা আর শত্রু কারা। জঙ্গিরা যদি ধর্মে বিশ্বাস করত তাহলে শোলাকিয়ার ঈদগাহে হামলা করে মুসল্লিদের মারার পরিকল্পনা করত না।
মন্ত্রী বলেন, আফগানিস্তান এবং পাকিস্তানে জঙ্গিদের আখড়া ছিল। আফগানিস্তানে জঙ্গি কিছুটা হলেও উৎখাত হয়েছে। এখনো শুনতে পাই পাকিস্তানে বিভিন্ন স্থানে বোমা হামলায় শত শত মানুষ নিহত হচ্ছে। পাকিস্তানতো মুসলিমপ্রধান দেশ, তাহলে সে দেশে কেনইবা বোমা হামলা হচ্ছে। শুধু এশিয়ার দেশগুলোতেই নয়, হামলা হচ্ছে ইউরোপের দেশগুলোতেও। আল্লাহ মানুষ হত্যা করার এখতিয়ার কাউকে দেননি। বাংলাদেশ শিক্ষা পরিবার একটি বৃহৎ অংশ নিয়ে গঠিত। যার মধ্যে ২৫ লাখ রয়েছে শিক্ষক এবং ৫ কোটি শিক্ষার্থী। আমরা সবাই মিলে যদি জঙ্গিবাদ প্রতিরোধে হুঁশিয়ারি দিই তাহলে দেশ থেকে আগাছাগুলোকে সরিয়ে ফেলা যাবে।
সভায় মন্ত্রী উপস্থিত শিক্ষকদের উদ্দেশে বলেন, শিক্ষার্থীদের সঙ্গে আন্তরিক হওয়ার চেষ্টা করুন। মাসে একটি করে স্ব স্ব প্রতিষ্ঠানে জঙ্গিবাদবিরোধী সভা করুন। এতে শিক্ষার্থীদের মনে জঙ্গিবাদ নিয়ে বিরূপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হবে। আপনার আপনাদের প্রতিষ্ঠানে সাংস্কৃতিক চর্চা এবং খেলাধুলার ব্যবস্থা করুন। এতে শিক্ষার্থীদের চিন্তাশক্তি বৃদ্ধি পাবে।
মতবিনিময় সভায় বরিশাল মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান মু. জিয়াউল হকের সভাপতিত্বে এ সময় উপস্থিত ছিলেন বরিশাল ২ আসনের সাংসদ ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট তালুকদার মো. ইউনুস, সদর আসনের সংসদ সদস্য জেবুন্নেছা আফরোজ, বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর ড. এস এম ইমামুল হক, শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের সচিব সোহরাব হোসেন, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক (ভারপ্রাপ্ত) শামসুল হুদা, মাদ্রাসা শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচারক বিল্লাল হোসেন, বরিশাল বিভাগীয় কমিশনার মো. গাউসসহ অনরা।
মতবিনিময় সভার পর মন্ত্রী বরিশাল মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডেও ডিজিটাল কর্মসূচির উদ্বোধন করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here