পাহাড়ে হরতাল চলছে

0
5

খাগড়াছড়ি (বাংলা ২৪ বিডি নিউজ) : পার্বত্য ভূমি বিরোধ নিষ্পত্তি কমিশন আইন-২০১৬ বাতিল ও বান্দরবানের বাঙালি নেতা মো. আতিকুর রহমান আতিকের মুক্তির দাবিতে পাহাড়ে (খাগড়াছড়ি, রাঙামাটি ও বান্দরবান) ৪৮ ঘণ্টা হরতালের প্রথম দিনের হরতাল চলছে।
বাঙালিদের অধিকার আদায়ে আন্দোলনরত পাঁচ সংগঠন পার্বত্য নাগরিক পরিষদ, পার্বত্য চট্টগ্রাম সমঅধিকার আন্দোলন, পার্বত্য গণ পরিষদ, পার্বত্য বাঙালি ছাত্র পরিষদ ও পার্বত্য বাঙালি ছাত্র ঐক্য পরিষদ যৌথভাবে তিন পার্বত্য জেলায় এ হরতালের ডাক দেয়।
হরতালের সমর্থনে বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই খাগড়াছড়িসহ তিন পার্বত্য জেলার বিভিন্ন পয়েন্টে পার্বত্য বাঙালি ছাত্র পরিষদের নেতাকর্মীদের রাস্তায় টায়ার জ্বালিয়ে খণ্ড খণ্ড মিছিল করতে দেখা গেছে। হরতালের কারণে ঢাকা-চট্টগ্রামসহ দূরপাল্লা ও অভ্যন্তরীণ সড়কে সব ধরনের যান চলাচল বন্ধ রয়েছে। হাট-বাজারগুলোতে সব ধরনের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে।
হরতাল ঘিরে যেকোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে বিভিন্ন পয়েন্টে পুলিশ সদস্যদের সতর্কাবস্থায় থাকতে দেখা গেছে। পুলিশের পাশাপাশি সেনাবাহিনী ও বিজিবিকে টহল দিতেও দেখা গেছে।
এদিকে, পার্বত্য রাঙামাটিতে শান্তিপূর্ণ ও স্বত:স্ফুর্তভাবে হরতাল পালিত হচ্ছে। কোথাও কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। হরতালের সমর্থনে সকাল থেকেই জেলা শহরের বনরূপা, রিজার্ভবাজার, ভেদভেদীসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে পিকেটিং করছে আন্দোলনকারীরা।
হরতালের কারণে রাঙামাটি শহর থেকে দূরপাল্লার কোনো যানবাহন ছেড়ে যায়নি। পাশাপাশি আভ্যন্তরীণ সড়কেও যান চলাচল বন্ধ রয়েছে। জেলার বিভিন্ন উপজেলা ও প্রতিবেশী জেলার উদ্দ্যেশ্যে কোনো ধরনের লঞ্চ ছেড়ে যায়নি।
অপরদিকে, হরতালের কারণে খাগড়াছড়ি, রাঙামাটি ও বান্দরবান জেলা শহরে আটকা পড়েছে সহস্রাধিক পর্যটক।
উল্লেখ্য, গত রোববার পার্বত্য গণপরিষদের মহাসচিব অ্যাড. মোহাম্মদ আলম খান স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বৃহস্পতিবার ও রোববার ৪৮ ঘণ্টা হরতালের ডাক দেয় অঅন্দোলনরত পাঁচ বাঙালি সংগঠন।
প্রসঙ্গত, গত ১ আগস্ট প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মন্ত্রিসভার বৈঠকে পার্বত্য চট্টগ্রাম ভূমিবিরোধ নিষ্পত্তি কমিশন আইনের ১৪টি সংশোধনী ভোটিং সাপেক্ষে চূড়ান্ত অনুমোদন দেওয়া হয়। পরে ৯ আগস্ট আইনটি অধ্যাদেশ আকারে জারি করা হয় এবং সর্বশেষ গত ৬ অক্টোবর আইনটি জাতীয় সংসদে পাস করা হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here