আজ: শনিবার, ২৩শে সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ইং, ৮ই আশ্বিন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, শরৎকাল, ৪ঠা মুহাররম, ১৪৩৯ হিজরী, সন্ধ্যা ৬:৪৩

সাংবাদিক বাদলের বিরুদ্ধে মুখ খুললেন কাঁচপুরী

স্টাফ রিপোর্টার (বাংলা ২৪ বিডি নিউজ): নারায়ণগঞ্জ থেকে প্রকাশিত ডান্ডিবার্তা পত্রিকার সম্পাদক হাবিবুর রহমান বাদলের বিরুদ্ধে মুখ খুলেছেন বাংলাদেশ আওয়ামী ওলামালীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি আলহাজ¦ হাবিব উল্লাহ কাঁচপুরী। বাদলকে চিহ্নিত চাঁদাবাজ, টাউট, দালাল অখ্যায়িত করে তিনি বলেন, দীর্ঘদিন ধরে হাবিবুর রহমান বাদল আমার কাছ থেকে নিয়মিত আর্থিক সুবিধা নিয়ে আসছে। বাদল আমার অফিসে এসে ১ লাখ ৫০ হাজার টাকা নিয়েছে যার সিসি ক্যামেরার ফুটেজ আমার কাছে রক্ষিত আছে। টাকার নেয়ার সময় বাদলের সাথে শীতলক্ষ্যা পত্রিকার সম্পাদক আরিফ আলম দিপু, সোজাসাফটার সম্পাদক সোহেল, খবর প্রতিদিনের সম্পাদক রুমীও ছিল। অনার্স এসোসিশনের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর অনুষ্ঠানে খাবারের জন্য তারা এই টাকা নেয়। যেহেতু দলবদ্ধভাবে এসেছে তাই সবার সামনে টাকা দিয়েছি। কিন্তু এই টাকা নেয়ার পরও বাদল তাদের অগোচরে এককভাবে টাকা দাবি করে। আমি দিয়েছি। এছাড়া ব্যাংকের মাধ্যমে আমার কাছ থেকে বাদল টাকা নিয়েছে ওই ডকোমেন্টও আমার কাছে আছে। টাকা না পেলেই সে আমার বিরুদ্ধে নিউজ করে। টাকা ছাড়াও আমার বিল্ডিংয়ে এলজির শো-রুম থেকে আমার নামের উপর বাদল ওভেন ও প্রেসার কুকার নিয়েছে।এভাবে নানা সুবিধা ভোগ করার পরও সে আমার বিরুদ্ধে কেনো এমন করছে বুঝতে পারছি না।
কাঁচপুরী প্রকাশিত সংবাদের একটি অংশ উল্লেখ করে বলেন, বাদল লিখেছে আমি নাকি ফ্ল্যাট বিক্রি করে ফ্ল্যাট বুঝিয়ে দেই নি। এটার প্রমান বাদলকে দিতে হবে। আবার লিখেছে আমি প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে কথা বলেছি তারও প্রমান তাকে দিতে হবে। আসলে বাদল একটা চিহ্নিত চাঁদাবাজ, টাউট। টাকা পেলে চুপ থাকে, না পেলেই মানুষের চরিত্র হনন করে তার অখাদ্য কাগজে (ডান্ডিবার্তা) সংবাদ ছাপিয়ে মানুষকে হয়রানী করে। আন্ডার মেট্টিক পাস (কারো মতে মেট্টিক পাস) বাদল একটি পত্রিকার সম্পাদক হয় কীভাবে? এটা বোধগম্য না। আসলে যার নিজের চরিত্র নাই। তা কাছে ভালো কিছু আশা করাও বোকামী। কথা বলে চোওে না শোনে ধর্মেও কাহিনী।
বুধবার (১৯ অক্টোবর) নারায়ণগঞ্জ থেকে প্রকাশিত দৈনিক ডান্ডিবার্তায় বাংলাদেশ আওয়ামী ওলামালীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি আলহাজ¦ হাবিব উল্লাহ কাঁচপুরীর চরিত্র হনন করে একটি সংবাদ প্রকাশিত হয়। প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে হাবিব উল্লাহ কাঁচপুরী উপরোক্ত কথাগুলো বলেন। তিনি আরো বলেন, প্রকাশিত সংবাদটি উদ্দেশ্য প্রনোদিত, মিথ্যা ও বানোয়াট। আমি আসন্ন জেলা পরিষদ নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করার ইচ্ছা পোষন করি। এ নিয়ে গনসংযোগ অব্যাহত আছে। ঠিক সেই মুহুর্তে দৈনিক ডান্ডিবার্তার সম্পাদক ও প্রকাশক হাবিবুর রহমান বাদল একটি মহলের প্ররোচনায় আমার বিরুদ্ধে মাঠে নেমেছে। নানা উদ্ভোট ও কল্পকাহিনীর মিশ্রন ঘটিয়ে সম্পূর্ণ মিথ্যে তথ্যের ভিত্তিতে আমার বিরুদ্ধে সংবাদ পরিবেশন করেছে। তার আসল উদ্দেশ্য আমাকে সামাজিক ও রাজনৈতিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন করার অপচেষ্টা। আমি পরিস্কার করে বলতে চাই, বাদল আমার কাছ থেকে আর্থিক সুবিধা নিতে বা না পেয়ে আমার বিরুদ্ধে উল্টোপাল্টা লিখতেছে।
এদিকে স্থানীয় এলাকাবাসী জানান, হাবিব উল্লাহ কাঁচপুরী আওয়ামলীগের রাজনীতির সাথে জড়িত। তার রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ থাকতেই পারে। কিন্তু তিনি কখনো কারো সাথে বিরোধে জড়াননি। ১৫/২০ আগে তার অস্ত্রেও লাইসেন্স থাকলেও তিনি প্রকাশ্যে কখনও অস্ত্র ব্যবহার করেননি। বা ব্যবহার করতে দেখা যায়নি। ব্যবসায়িকভাবে তিনি প্রতিষ্ঠিত। তার গ্রামের বাড়ি চৌদ্দগ্রামে সরজমিন গেলে দেখা যাবে তিনি কী পরিমান সামাজিক কাজ করেছেন। এবং এখনো করছেন। কিন্তু তাকে জড়িয়ে মিথ্যে সংবাদ প্রকাশিত হওয়ায় ডান্ডিবার্তা পত্রিকার বস্তনিষ্ঠতা নিয়ে প্রশ্ন উঠা স্বাভাবিক।
ওদিকে বাদলের আক্রোশের শিকার অনেকেই বলছেন, হাবিবুর রহমান বাদলকে জুতা মারা জবাব দিয়েছে দৈনিক ইয়াদ পত্রিকার সম্পাদক তোফাজ্জল হোসেন। বাদলকে বরকী বাদল আখ্যা দিয়ে তার লেখা শহরবাসী লুফে নিয়েছে। এবং বাদলের অতীত ইতিহাস জানতে পেরেছে। চরিত্রহীন বাদল টানবাজার পতিতালয়ে তার যৌবনের বড় একটি সময় পার করেছেন। ওই পতিতালয়ে তার জন্ম নেয়া শিশু পুত্রকে  নিয়েও নানা কথা শহরে চালু আছে।
বাদলের আক্রোশের শিকার আরো অনেকে

দূগাপূজাকে ঘিরে বাদল শহর অাওয়ামীলীগের সভাপতি অানোয়ার হোসেনের বিরুদ্ধেও মিথ্যে সংবাদ প্রকাশ কেরেছে। এছাড়া
গত ১৩ মার্চ বাদল তার পত্রিকায় বিশিষ্ট শিল্পপতি মোহাম্মদ আলীকে জড়িয়েও নিউজ করেন। সূত্র মতে, শুধু শিল্পপতি মোহাম্মদ আলী নন, ডান্ডিবার্তার গত ৫ মার্চ সংখ্যায় মোহাম্মদ আলীর সঙ্গে শহরের বিশিষ্ট নাগরিক কাশেম জামাল, আঃ রাশেদ রাশু ও মুক্তিযোদ্ধা আমিনূর রহমানেরও চরিত্রহনন মূলক মিথ্যা তথ্য প্রদান করা হয়েছে। তাদের অপরাধ, তারা মেয়র আইভীর পিতা মরহুম আলী আহাম্মদ চুনকার ওরশ উপলক্ষে তারা দেওভোগ চেয়ারম্যান বাড়ি গিয়েছিলেন। ডান্ডিবার্তায় অভিযোগ করা হয়, মোহাম্মদ আলী সহ উপরোক্ত চার বিশিষ্ট নাগরিক সেদিন খানকা ভবণে মেয়র আইভীর সঙ্গে এক গোপন বৈঠক করেছেন। সে বৈঠকে ত্বকী মঞ্চের নেতা সহ কিছু বাম ঘরানার নেতাও উপস্থিত ছিলেন। সেখানে আগামী সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মেয়র আইভীর পক্ষে কে কোন ভূমিকায় থাকবেন, তা নির্ধারন করা হয়। চার বিশিষ্ট নাগরিককে দেয়া হয় আইভীর পক্ষে মিডিয়া নিয়ন্ত্রনের দায়িত্ব। তারা আইভীর কাছে তাদের নেপথ্যে রাখার দাবী জানালে আইভী তা মেনে নেন। তবে, সেদিনের নিমন্ত্রিতরা জানিয়েছেন, বিকাল সোয়া চারটা পর্যন্ত আইভী সেদিন বাড়ির বাইরে নির্মিত প্যান্ডেলে আমন্ত্রিতদের অভ্যর্থনা জানাতেই ব্যাস্ত ছিলেন। এর মধ্যে এক বারের জন্যও তিনি ভেতরের বাড়িতে প্রবেশ করেননি। আর যেখানে গোপন মিটিংয়ের অভিযোগ করা হয়েছে, সেখানে বিকাল চারটা অতিথিরা খাওয়া দাওয়া করেছে। ভীড় বেশী থাকার কারণে, পরিবেশটা ছিল এমন, একজন খাচ্ছেতো দুজন তার পেছনে দাঁড়িয়ে আছে। তবে, সেদিন বাড়ির বাইরের প্যান্ডেলে মেয়রের সঙ্গে শিক্ষানুরাগী কাশেম জামালের দীর্ঘক্ষণ আলাপ হয়েছে। প্যান্ডেলেই আলাপ হয়েছে শিল্পপতি মোহাম্মদ আলীর সঙ্গে। তবে, মোহাম্মদ আলী পরে আসেন এবং তার সঙ্গে মেয়রের কাশেম জামালের মতো দীর্ঘক্ষণ আলাপ হয়নি।
সূধী মহলের মতে, আইভী-শামীম বিবাদে এ শহরে সুবিধাভোগী কারা? যদি পাঁচজন সুবিধাভোগীরও তালিকা হয়, তাতে নির্ঘাৎ ডান্ডিবার্তা সম্পাদক হাবিবুর রহমান বাদলের নাম থাকবে। প্রাথমিক ভাবে দু’তরফ থেকেই সুবিধা নিয়েছেন বাদল। আইভীর থেকে একচেটিয়া পৌরসভার বিজ্ঞাপন ও দোকানপাট নিয়েছেন। আবার সেলিম ওসমানের কাছ থেকে থোক টাকা, বিজ্ঞাপন এবং একাধিক হজ্বের সুবিধা নিয়েছেন। তবে, বিগত মেয়র নির্বাচনে তার দু’পক্ষের মাঝে ভারসাম্য রক্ষা করে গাছে খাওয়া ও তলায় কুড়ানোর খেলা বন্ধ হয়ে যায়। সরাসরি তাকে আইভীর বিরুদ্ধে শামীম ওসমানের পক্ষে নামতে হয়। এর পর বাদল ও তার ডান্ডিবার্তা ওসমান পরিবারের পক্ষে ও মেয়র আইভীর বিরুদ্ধে অবস্থান নেন। ওসমান পরিবার থেকে বাদল শুধু আর্থিক সুবিধা নয়, প্রভাবের সুবিধাও নিয়েছে। এ প্রভাব খাটিয়ে বাদলের হাত বদল হয়ে যাওয়া ডান্ডিবার্তা তিনি পরিবর্তিত মালিকের কাছ থেকে কেড়ে আনতে পেরেছেন। হোসিয়ারী সমিতি ভবনে অবস্থিত ডান্ডিবার্তা অফিসের ভাড়া দীর্ঘদিন পরিশোধ না করায় তাকে ভবণ ছেড়ে দেয়ার নোটিশ প্রদান করার অপরাধে তিনি হোসিয়ারী ক্লাবে ঢুকে হোসিয়ারী সমিতি নেতা জাহাঙ্গীর হোসেনকে মেরে উল্টো তাকে মারার অভিযোগে পুলিশে তুলে দিয়েছিলেন। এসব পেরেছিলেন ওসমান পরিবারের প্রভাবে। সেলিম ওসমানের দয়ায় নারায়ণগঞ্জ ক্লাবের কর্মকর্তা হয়ে বাজার সরকারের দায়িত্বও পেয়েছিলেন। যেখানে দুটি পয়সা পকেটে আসার ব্যবস্থা আছে। পয়সার জন্য তিনি সবই পারেন বলে অভিযোগ রয়েছে। তার অতীত জীবণও নানা কলঙ্কে জর্জরিত।
সাংবাদিক মহলের মতে, অমাবশ্যার অন্ধকার অঙ্গনে অশ্ব অন্ড অনুসন্ধানের মতো ভৌতিক রিপোর্ট প্রকাশের অভ্যাস বাদলের দীর্ঘদিনের। অতীতে স্বাধীন বঙ্গভুমির বঙ্গসেনা, জেএমবি, আত্মঘাতি জঙ্গী, জামাত-শিবির ক্যাডার ইত্যাদি প্রসঙ্গে ভৌতিক রিপোর্টের মাধ্যমে তিনি বহু মানুষকে অনর্থক ঝামেলায় ফেলেছেন। এক্ষেত্রে তিনি নিজ পেশার অপছন্দের লোক অথবা ভিন্ন মতের পত্রিকা অফিসকেও টার্গেট করেছেন। যার সত্যতা কখনো উদঘাটিত হয়নি।
রাজনৈতিক মহলের মতে, স্বাধীনতার পর জামায়াতের ছাত্র সংগঠন ছাত্র শিবিরের মাধ্যমে বাদলের রাজনৈতিক হাতেখড়ি হয়েছিল। সে আয়নায় নিজ চেহারা দেখে না। দেখলে সেখানে দু’মুখো সাপ নামের কুৎসিত সরীসৃপটির অবয়ব স্পষ্ট চোখে পড়তো। তাড়া খাওয়া চোর যেমন চোর চোর বলে চীৎকার করে নিজেকে চোরের পেছনে ধাবমান জনতার একজন প্রতিপন্ন করে, এ মুহুর্তে ঠিক সেভাবেই বাদল নিজেকে আড়াল করতে অন্যদের দু’মুখো সাপ বলছেন।

Share

Author: 24bdnews

4618 stories / Browse all stories

Related Stories »

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ফেসবুকে আমরা »

ছবি সংবাদ »

নিউজ আর্কাইভ »

MonTueWedThuFriSatSun
    123
11121314151617
252627282930 
       
 123456
28293031   
       
     12
3456789
10111213141516
24252627282930
31      
   1234
567891011
12131415161718
19202122232425
2627282930  
       
1234567
891011121314
15161718192021
22232425262728
293031    
       
     12
17181920212223
24252627282930
       
  12345
2728     
       
      1
23242526272829
3031     
   1234
262728293031 
       
   1234
12131415161718
       
      1
3031     
29      
       
      1
16171819202122
30      
   1234
12131415161718
19202122232425
262728293031 
       
 123456
78910111213
14151617181920
21222324252627
282930    
       
     12
17181920212223
24252627282930
31      
  12345
6789101112
13141516171819
20212223242526
       

সবশেষ সংবাদ »

সারাদেশ »