স্মার্টকার্ড পেয়ে উল্লসিত দাসিয়ারছড়াবাসী

0
3

কুড়িগ্রাম (বাংলা ২৪ বিডি নিউজ) : কুড়িগ্রামের বিলুপ্ত ছিটমহল দাসিয়ারছড়ায় নতুন ভোটারদের মধ্যে জাতীয় পরিচয়পত্র (স্মার্টকার্ড) বিতরণের উদ্বোধন করেছেন নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী রকিব উদ্দিন আহমদ। সোমবার বেলা ১১টায় কালিরহাট বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে ২০ জন নতুন ভোটারের মাঝে এ পরিচয়পত্র বিতরণ করেন নির্বাচন কমিশনার। ভোটার হওয়ার আনন্দ এবং জাতীয় পরিচয়পত্র পেয়ে দাসিয়ারছড়ায় বইছে আনন্দের জোয়ার।
কুড়িগ্রামের ১১টি বিলুপ্ত ছিটমহলে ২ হাজার ৯৯৮ জন ভোটার এবারই প্রথম ভোট দেবেন। এর মধ্যে ফুলবাড়ী উপজেলার অভ্যন্তরে দাসিয়ারছড়ায় ২ হাজার ৫৬২ জন এবং ভুরুঙ্গামারী উপজেলায় ১০টি ছিটমহলের ২৯২ জন। এসব ভোটার ৬টি ইউনিয়নের সঙ্গে সংযুক্ত হয়েছেন।
ফুলবাড়ীর তিন ইউনিয়নে মোট ভোটার সংখ্যা ১ লাখ ১৪ হাজার ৩১৯ জন। এর মধ্যে বিলুপ্ত ছিটমহলে নতুন ভোটার ২ হাজার ৫৬২।
অন্যদিকে ভুরুঙ্গামারীর তিনটি ইউনিয়নে মোট ভোটার ৬৩ হাজার ৪২৩। ১০টি ছিটমহলে নতুন ভোটার ২৯২। বিলুপ্ত ছিটমহলে ভোটার তালিকা প্রণয়নের জন্য চলতি বছরের ১০-১৬ জুলাই তথ্য সংগ্রহ করা হয়।
সারাদেশে ষষ্ঠ ধাপে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে সদ্যবিলুপ্ত ছিটমহলবাসীকে ভোটার হালনাগাদ না থাকায় বাদ পড়ে সংশ্লিষ্ট ইউনিয়নগুলো। আগামী ৩১ অক্টোবর কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলার ফুলবাড়ী সদর, শিমুলবাড়ি ও ভাঙামোড় ইউনিয়ন এবং ভুরুঙ্গামারী উপজেলার ভুরুঙ্গামারী সদর, পাথরডুবি ও শিলখুঁড়ি ইউনিয়নে ভোট অনুষ্ঠিত হবে।
বিলুপ্ত ছিটমহল দাসিয়ারছড়ার কালিরহাট বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে অনুষ্ঠিত স্মার্টকার্ড বিতরণ কার্যক্রম উদ্বোধন শেষে প্রধান অতিথির বক্তব্যে সিইসি বলেন, আপনারা সুনাগরিক হবেন, নিজেদের প্রতিষ্ঠিত করবেন। এখানে ২০ জন বিলুপ্ত ছিটমহলের নাগরিককে স্মার্টকার্ড দেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার। পর্যায়ক্রমে উপজেলার সাবেক ছিটমহল সংযুক্ত ৩ ইউনিয়নের ভোটারদের এ কার্ড দেয়া হবে।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অতিরিক্ত সচিব মোখলেসুর রহমানের সভাপতিত্বে বক্তব্য দেন এনআইডি মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ছালেকুজ্জামান মো. আবু সালেহ, কুড়িগ্রাম জেলা প্রশাসক খান মো. নূরুল আমিন প্রমুখ। এ সময় উপস্থিত ছিলেন নির্বাচন কমিশনার আব্দুল মোবারক, আবু হাফিজ ও শাহনেওয়াজ।
জাতীয় পরিচয়পত্র হাতে পেয়ে খুশিতে আত্মহারা দাসিয়ারছড়াবাসী। রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘আমরা কতা খুশি সেটা ভাষায় প্রকাশ করা যাবে না। জীবনের ৪৫ বছরে এসে ভোট দিতে পারছি। স্মার্টকার্ড পেলাম। আর কি চাওয়ার আছে?’
সাবেক ছিটমহল বিনিময় কমিটির সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা বলেন, আমরা অল্প সময়ের মধ্যে অনেক কিছু পেয়েছি। আজ প্রধানমন্ত্রীর পরই আমরা স্মার্টকার্ড (জাতীয় পরিচয়পত্র) পেলাম। আমাদের আনন্দের সীমা নেই।
উল্লেখ্য, গেল বছরের ৩১ জুলাই মধ্যরাতে ভারত-বাংলাদেশের ছিটমহল বিনিময় থেকেই নাগরিকত্বের মর্যাদা পায় দাসিয়ারছড়াসহ বিলুপ্ত ছিটমহলবাসী। উন্নয়ন হতে থাকে বাংলাদেশে সংযুক্ত হওয়া ১১১টি ছিটমহলের।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here