সামনে খারাপ সময় আসছে : শামীম ওসমান

0
12

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি (বাংলা ২৪ বিডি নিউজ): নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের এমপি ও আওয়ামীলীগ নেতা শামীম ওসমান বলেছেন, আমি রাজনীতি করি এবং সেটা বুঝে করি। আমি সারা বিশ্বের রাজনীতির খবর নিয়েই রাজনীতি করি। সামনে খারাপ সময় আসছে। যেটা কল্পনা করার মত না, সে ধরনের খারাপ সময়ই আসছে সামনে। দেশে ও বিদেশে বসে সে পরিকল্পনা হচ্ছে। আমি এর বেশী কিছু বলবো না। ভয়াবহ পরিস্থিতির দিকে দেশকে এগিয়ে নেওয়া হচ্ছে।
মঙ্গলবার বিকেলে নারায়ণগঞ্জ শহরের চাষাঢ়ায় শহীদ মিনার প্রাঙ্গনে সম্প্রতি সিলেটে জঙ্গী হামলায় নিহতদের স্মরণে দোয়া ও আহত র‌্যাবের গোয়েন্দা প্রধানের সুস্থ্যতা কামনা করে আয়োজিত দোয়া মাহফিলের বক্তৃতায় শামীম ওসমান এসব কথা বলেন।
শামীম ওসমান তার বক্তব্যে নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সভাপতি মাহাবুবুর রহমান মাসুম ও কেন্দ্রীয় খেলাঘরের সম্পাদক জহিরুল ইসলাম জহিরের পিতৃ পুরুষদের ‘রাজাকার’ হিসেবে আখ্যায়িত করে তাদের কিছু কর্মকান্ডের বিবরণ দেন। শামীম ওসমান বলেন, মাহাবুবুর রহমান মাসুমের বাবার নামাজের জানাযা পড়িয়েছেন জামায়াতের ফাঁসির দ-প্রাপ্ত আলী আহসান মুজাহিদ। অপর রাজাকার আজিজ ওরফে আইজ্জা রাজাকারের ছেলে হলো জহির। এসব লোকেরা বিষাক্ত। তাদের বীজ বপন করা হয়েছে। এটা বিষাক্ত এ ব্যাপারে সবাইকে সজাগ থাকতে হবে।
তিনি বলেন, বর্তমানে মুক্তিযুদ্ধাদের চেয়ে রাজাকাররা বেশী শক্তিশালী। কারণ মুক্তিযোদ্ধারা বিভিন্ন ভাবে বিভক্ত হওয়ায় তারা এখন দুর্বল হয়ে পড়েছে। আর রাজাকাররা শক্তি অর্জন করে দেশের বিভিন্ন এলাকায় নাশকতা করছে। নারায়ণগঞ্জে অনেক মুক্তিযোদ্ধা আছে, যারা রাজাকারদের সন্তানদের সঙ্গে মিশে চলাফেরা করছেন। তাতে রাজাকাররা আপনাদের সঙ্গে মিশে আপনাদের গোপন তথ্য নিয়ে শক্তিশালী হচ্ছে। এ জন্য রাজাকার ও রাজাকারদের সন্তানদের বর্জন করে চলতে হবে।
শামীম ওসমানের আয়োজনে ওই দোয়াতে নারায়ণগঞ্জ-৩ (সোনারগাঁও) আসনের এমপি লিয়াকত হোসেন খোকা, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন, জেলা প্রশাসক রাব্বী মিয়া, পুলিশ সুপার মঈনুল হক, র‌্যাব-১১ এর কমান্ডিং অফিসার লে. কর্ণেল কামরুল হাসান, জেলা ইমাম পরিষদের সভাপতি মনির হোসেন প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।
শামীম ওসমান সিলেটে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর নিহত সদস্যদের নামে সড়কের নামকরণের ঘোষণা দেন।
আলোচিত এ সংসদ সদস্য আরো বলেন, ‘একাত্তরে পরাজিত শক্তি এখন কাজ করছে ‘হিট অ্যান্ড রান’ পদ্ধতিতে। এক জায়গায় অবস্থান করে ঘটনা ঘটিয়ে দ্রুত সেখান থেকে চলে যাবে। নারায়ণগঞ্জেও ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক ও ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কের আশেপাশে এ ধরনের ঘাঁটি আছে সে ব্যাপারে খোঁজ খবর নিতে হবে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে।
তিনি নারায়ণগঞ্জের প্রগতিশীল সবাইকে একজোট হওয়ার আহবান রেখে বলেন, ‘আমরা যারা মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের শক্তি তাদের মধ্যে ঐক্য কম। আর পরাজিত শক্তিদের ঐক্য বেশী। তারা শক্তিশালী তাই আমাদের এখন থেকেই প্রস্তুত থাকতে হবে। তারা ছোবল দেওয়ার চেষ্টা করবে তাই সবাইকে সজাগ থাকতে হবে, প্রতিহত করতে হবে।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here