সুচির নোবেল বাতিলের দাবি অধিকারের

0
4

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি (বাংলা ২৪ বিডি নিউজ): মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে সেনাবাহিনী কর্তৃক রোহিঙ্গাদের ওপর চলমান হত্যাযজ্ঞ ও নির্যাতন বন্ধের দাবি জানিয়েছে মানবাধিকার সংগঠন অধিকার নারায়ণগঞ্জ ইউনিট। একই সঙ্গে শান্তিতে নোবেল জয়ী অং সান সুচির পদক বাতিল ও রোহিঙ্গাদের ওপর চলমান সহিংসতা বন্ধ করে বাংলাদেশে আশা রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেয়ার আহ্বান জানানো হয়। শনিবার (৯ সেপ্টেম্বর) সকালে শহরের কলেজ রোড এলাকায় অধিকারের মাসিক সভায় বক্তারা এ আহবান জানান। অধিকার নারায়ণগঞ্জ ইউনিটির সমন্বয়ক সাংবাদিক বিল্লাল হোসেন রবিনের সভাপতিত্বে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ও উপস্থিত ছিলেন, অধিকারেরকর্মী এম কবির ইউ চৌধুরী, এস এম এনামুল হক প্রিন্স, রাজিয়া সুলতানা শিশির, তাওফিকুল ইসলাম দিপু, মো: আশরাফ সিদ্দিকী দুপুর, প্রিয়াঙ্কা রায়, শামীম আরা শাম্মী, ছিফায়েত উল্লাহ মাসফি, গোলাম রাব্বানী শিমুল, নাদিয়া জাহান, হাসিবুর রহমান, নুসরাত জাহান সুপ্তি প্রমুখ।
বক্তারা বলেন, মিয়ানমারের সেনাবাহিনী রোহিঙ্গাদের উপর গণহত্যা চালাচ্ছে, জঘন্য অমানবিক আচরণ করছে। আগুন দিয়ে রোহিঙ্গাদের ঘরবাড়ি জ্বালিয়ে দেয়া হচ্ছে। আর এ জঘন্য কাজে সেনাবহিনীকে সমর্থন জানাচ্ছে তথাকথিত শান্তির দূত অং সান সুচি। রোহিঙ্গাদের উপর বর্বর হত্যা নির্যাতনে সমর্থন দেয়ায় অং সান সুচি’র নোবেল পুরস্কার কেড়ে নেয়া উচিত।
বক্তারা আরো বলেন, রোহিঙ্গা মুসলমানদের উপর পরিচালিত জাতিগত নির্মূল অভিযান বন্ধে জাতিসংঘ, ওআইসিসহ আন্তজার্তিক সংস্থাসমূহকে কার্যকর ভূমিকা পালন করতে হবে। একই সঙ্গে প্রাণ বাঁচাতে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের মানবিক কারণে বাংলাদেশে আশ্রয় দিতে হবে।
সভায় গত আগস্ট মাসে সারাদেশে মানবাধিকার লঙ্ঘনজনিত সকল ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে বক্ত্যরা বলেন, বিচারহীনতার সংস্কৃতির কারণে অপরাধ প্রবনতা ক্রমান্বয়ে বেড়ে যাচ্ছে। আশংকাজনক ভাবে বৃদ্ধি পাচ্ছে ধর্ষণের ঘটনা। এতে আমরা উদ্বিগ্ন। এসব অমানবিক ঘটনা বন্ধে সরকারকে কার্যকরী প্রদক্ষেপ নেয়ার দাবি জানাচ্ছি।
হত্যা ও নির্যাতনের ঘটনায় চরম ক্ষোভ ও নিন্দা প্রকাশ করা হয়। এবং শান্তিতে নোবেল জয়ী অং সান সুচির পদক বাতিলেরও দাবি জানানো হয়। একই সঙ্গে রোহিঙ্গাদের ওপর চলমান সহিংসতা বন্ধ করে বাংলাদেশে আশা রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন তারা।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here