1. admin@bangla24bdnews.com : b24bdnews :
  2. robinmzamin@gmail.com : mehrab hossain provat : mehrab hossain provat
  3. maualh4013@gmail.com : md aual hosen : Md. Aual Hosen
  4. tanvirahmedtonmoy1987@gmail.com : shuvo khan : shuvo khan
শুক্রবার, ০৫ মার্চ ২০২১, ০৬:৩৫ পূর্বাহ্ন

এক মিনিটও দুর্ণীতির সঙ্গে থাকতে চাই না : স্বাস্থ্য সচিব

স্টাফ রিপোর্টার (বাংলা ২৪ বিডি নিউজ):
  • আপডেট সময় : সোমবার, ১৩ জুলাই, ২০২০
  • ১৫৭

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য সেবা সচিব আব্দুল মান্নান বলেছেন, রিজেন্ট বা জেকেজি যে কেউ হোক না কেন কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না। প্রতিদিনই আমরা কোন না কোন উদ্যোগ নিচ্ছি। দূর্নীতির সঙ্গে জড়িত কাউকে আমরা ছাড় দিবো না। আমি এক মিনিটও দূর্নীতির সঙ্গে থাকতে চাই না। আমরা চাই না কোন দূর্নীতি হোক। আমরা সবসময় সত্যের সঙ্গে থাকতে চাই। এবং যেখানেই দুর্নীতি করবে  স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয়ের আওতাধীন আমরা যখন তথ্য প্রমান পাবো সঙ্গে সঙ্গে এ্যাকশন হবে। এটা করছি আমরা। একটা দিনও বসে নেই। আর সবচেয়ে বড় কথা হলো সত্য যেন বের হয়ে আসে। আমরা সত্যের সঙ্গেই থাকতে চাই। এবং দুর্নীতি যা হয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন কিন্তু বসে নেই। তারা কাজ করছে। আমরাও কিন্তু তথ্য উপাত্ত দেয়ার চেষ্টা করেছি। তাদের হেল্ফ করছি। যারা অপরাধ করবে তারা তো অবশ্যই আইনের আওতায় আসবে। আসা উচিৎ। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সব সময়ই বলেছেন জিরো টলারেন্স। কিন্তু আমাদের তথ্য উপাত্ত পেতে অনেক সময় বিলম্ব হয়। এই গুলা আপনারাই (গণমাধ্যম) সাহায্য করবেন। স্বাস্থ্য খাতে দুর্নীতি নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

আরেক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, মিডিয়াই আমাদের একমাত্র অবলম্বন। কারণ আমাদের তো লোকবলের অভাব থাকতে পারে। কিন্তু আপনারা তো আমাদের তথ্য দিতে পারেন। আপনারা তথ্য দিবেন নারায়ণগঞ্জে এই এই করেছে। বা প্রাইভেট হসপিটাল এ অপকর্ম করেছে। আমরা কিন্তু কাউকে ছাড়তে চাচ্ছি না।

সোমবার (১৩ জুলাই) দুপুরে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের (ভিক্টরিয়া) সভা কক্ষে প্রেস  ব্রিফিং করেন স্বাস্থ্য সেবা সচিব।

তিনি বলেন, করোনার প্রথম দিক থেকেই নারায়ণগঞ্জ হটস্পটে পরিণত হয়েছিল। নারায়ণগঞ্জ কিন্তু এখন একটি পর্যায়ে আসছে। আমার আসার মূল উদ্দেশ্য স্বাস্থ্য সেবা ও করোনা নিয়ে যারা এখানে কাজ করছে তাদের সবার সঙ্গে দেখা করা, তাদের সমস্যাগুলো শোনা, অক্সিজেন সিলিন্ডার পর্যাপ্ত আছে কিনা, ইকুয়েপমেন্টের কোন ঘাটতি আছে কিনা মোটামোটি সবকিছু মিলিয়েই তাদের মুখ থেকে সবকিছু শোনা। ফ্রন্টলাইনের যে যোদ্ধারা আছে যদি তাদের সঙ্গে আমরা যোগাযোগ না রাখি তাহলে কাজ করার যে মনোবল সেটাও তাদের থাকে না। তাই আমি মনে করেছি সিভিল সার্জনকে ঢাকায় ডেকে সবকিছু শোনা আর নিজে এখানে এসে সব দেখা ও শোনার মধ্যে পার্থক্য রয়েছে। আমার আসার কারণে তারা যাতে একটু মনোবল ফিরে পায় সেটাও একটি উদ্দেশ্য। মোটকথা ইন ডিটেইলস আমরা ওনাদের কাছ থেকে শুনতে এসেছি।

ল্যাব এইডসহ বিভিন্ন যেসব প্রতিষ্ঠান করোনা পরীক্ষার জন্য অনুমোদন পেয়েছে তারা কি শুধু ঢাকাতেই পেয়েছে নাকি সারাদেশে পেয়েছে এমন এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এগুলো ডিজি অফিসের কাজ। এগুলো মন্ত্রণালয় করে না। মহাপরিচালকের অফিস থেকে লাইন ডিরেক্টররা আছে কে কোন কাজটা দেখবে। তারা নিশ্চয় তাদের কাছ থেকে পারমিশন নিয়েছে। বড় বড় হাসপাতালগুলো যেমন ইউনাটেড বা ল্যাবএইড এদের সারাদেশের বিভিন্ন জায়গায় শাখা থাকে। তো তারা যখন অনুমতি নিবে এক জায়গার জন্য নিবে না। সারাদেশের জন্য নিবে না। আমরা মনে হয় এরকম কিছু একটা হয়েছে। আর যদি এরকমটা না হয় সেটাও আমরা খোঁজ নিবো। আর তারা যদি করোনা পরীক্ষায় টাকা বেশি নেয় সেই বিষয়টাও আমি সিভিল সার্জনকে বলে দিচ্ছি যাতে করে তিনি সে বিষয়ে ব্যবস্থা নেন।

তিনি আরও বলেন, আমি শুধু বলতে চাই অপরাধ যারাই করবে সেটা কোন হাসপাতাল বা কে বা কি নাম তা দেখার বিষয় না। একদম সিলগালা করে দিবো।

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন- স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব উম্মে সালমা তানজিয়া, জেলা প্রশাসক জসিম উদ্দিন, ৩শ শয্যা হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. গৌতম রায়, জেলা সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ ইমতিয়াজ, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোস্তাফিজুর রহমান, সদর উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. জাহিদুল ইসলাম, আড়াইহাজার উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. সায়মা আফরোজ ইভা প্রমুখ।

ফেসবুকে আমরা

এ বিভাগের আরও সংবাদ
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব www.bangla24bdnews.com কর্তৃক সংরক্ষিত
Customized By NewsSmart