1. admin@bangla24bdnews.com : b24bdnews :
  2. robinmzamin@gmail.com : mehrab hossain provat : mehrab hossain provat
  3. maualh4013@gmail.com : md aual hosen : Md. Aual Hosen
  4. tanvirahmedtonmoy1987@gmail.com : shuvo khan : shuvo khan
মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর ২০২০, ০৩:৩৫ পূর্বাহ্ন

“করোনা যুদ্ধের সুর্য সন্তানদের লাল সালাম”

আসিফ হোসাইন (বাংলা ২৪ বিডি নিউজ):
  • আপডেট সময় : শুক্রবার, ৮ মে, ২০২০
  • ২৯৯
আল্লাহর ররহমতে একদিন এই পৃথিবী করোনা মুক্ত হবে। আবার প্রতিটা মানুষ স্বাধীনভাবে পৃথিবীর বুকে হেঁটে বেড়াবে। প্রাণ ভরে নিশ্বাস নিবে। যার যার স্বপ্ন পূরণের রাস্তায় এগিয়ে যাবে সগৌরবে।
এই বিভীষিকাময় করোনার দিনগুলো সবাই একদিন ভুলে যাবে। ভুলতে পারবে না শুধু করোনার সাথে যুদ্ধের ময়দান থেকে পালিয়ে না আসা কিছু সূর্য সন্তান। ডাক্তার, নার্স, সাংবাদিক, আইনশৃংখলা বাহিনীর প্রতিটা সদস্যই এই যুদ্ধের নায়ক।
দেশের করোনা পরিস্থিতির দিকে একটু চোখ বুলিয়ে দেখুন। যেসব জেলা করোনায় সংক্রমিত হয়েছে সেসব জেলার ডাক্তার, নার্স, সাংবাদিক ও আইন শৃংখলা বাহিনীর সদস্যদের করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা নেহাৎ কম নয়। তাদের মৃত্যুসংখ্যাও বেড়েই চলেছে। তারা একমাত্র দেশের মানুষকে রক্ষা ও সেবা দিতে গিয়ে এই যুদ্ধে মারা যাচ্ছে, আহত হচ্ছে।
এই প্রজন্মের তরুণরা ৭১ এর মুক্তিযুদ্ধ দেখে নি। জীবন বাজি রেখে যুদ্ধে গিয়ে দেশকে স্বাধীন করে এনেছে যারা তাদের বিরত্বের কথা এদেশের মানুষ  ইতিহাস পড়তে গিয়ে জেনেছি।
আর এখন আমরা নিজেরাই যেন তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধের মধ্য দিয়ে যাচ্ছি। এক অদেখা ভাইরাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধ। অদৃশ্য সবকিছুই ভয়ংকর। গোপনে ধীরে ধীরে ঠিকই আমাদের ঘায়েল করে ফেলছে এই ভাইরাস। আমরা যে যার নিরাপত্তার কথা ভেবে ঘরে বসে বসে সংবাদ পড়ি / দেখি। আক্রান্তের ও মৃত্যুর সংখ্যা হিসাব করি। আলোচনা করি,  সমালোচনা করি।
কিন্তু যারা ঘরের বাহিরে আমাদের জন্য যুদ্ধ করে যাচ্ছে তাদের বন্দনা আমরা কয়জনের কাছে করি?
ডাক্তার, নার্স, সাংবাদিক, আইন শৃংখলা বাহিনীর প্রতিটা সদস্যের আমাদের মতো পরিবার আছে। হয়তো তাদের মৃত্যুটা এদেশে প্রতিটা মৃত্যুর মতো সংখ্যা হিসেবেই বিবেচিত হবে।
কিন্তু তাদের পরিবারের কাছে?
যার যার পরিবারের কাছে কিন্তু প্রতিটা সদস্যই এক একটা পৃথিবী।
আমরা একটু বাসা থেকে বের হলেই মা- বাবার হাজারটা ফোন পাই। -‘তাড়াতাড়ি বাসায় আয়। বাহিরে কেন গেছিস!’ কত চিন্তা, কত ভয়!
অথচ ডাক্তার, নার্স, সাংবাদিক, আইন শৃংখলা বাহিনীর সদস্যরা কতদিন মায়ের মুখ দেখে না। পরিবার থেকে এক প্রকার বিচ্ছিন্নই বলা চলে।
তাদের বিরত্বের কথা একদিন ঠিকই লেখা হবে। একদিন ঠিকই শ্রদ্ধা ভরে তাদের কথা স্মরণ করা হবে। যারা এই করোনা যুদ্ধে শহীদ হবে তাদের সমাধিতে ঠিকই ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো হবে। কিন্তু সেটা অনেক দেরীতে। অভিমান বুকে নিয়ে এই করোনা যুদ্ধের নায়কেরা যখন আর থাকবে না, যখন নতুন প্রজন্মের পর নতুন প্রজন্ম জন্ম নিবে ঠিক তখনই হয়তো তাদের স্মরণ করা হবে।
আমরা এই প্রজন্মের মানুষ শুধু সমালোচনাটাই করতে জানি। শ্রদ্ধা, ভালোবাসা আমাদের ভিতরে নাই বললেই চলে। তথ্য প্রযুক্তির যুগের এই আমরা মানুষের মৃত্যু নিয়েও হাসিঠাট্টা করি। সোস্যাল মিডিয়ায় মৃত মানুষ নিয়েও সমালোচনায় মেতে উঠি। দিন দিন আমরা কেমন যেন আত্মকেন্দ্রিক হয়ে যাচ্ছি।
দেশের ইতিহাসও এমনটাই বলে। ৭১ এর নায়কেরা দীর্ঘ ৪৯ বছর অতিবাহিত হওয়ার পরেও কিন্তু অবহেলিত। তাদের বিরত্বের গল্প নিয়েও আমরা ইতিহাস বিকৃত করি। আমাদের রাজনীতির ফায়দা হাসিলের জন্য আমরা ৭১ এর শহীদদের সংখ্যা নিয়ে দ্বিমত পোষণ করি। তর্কের টেবিলে শহীদদের বিরত্বের কথা চাপা পড়ে যায়……
যাইহোক, করোনা যুদ্ধের প্রতিটা সূর্য সন্তানের জন্য আমার শ্রদ্ধা, ভালোবাসা। আপনারাই পরের প্রজন্মের অনুপ্রেরণা। আপনারা অবহেলিত হলে অবহেলিত হবে এই দেশ। আপনাদের প্রতি লাল সালাম।
আসিফ হোসাইন
ফ্রিল্যান্স সাংবাদিক

ফেসবুকে আমরা

এ বিভাগের আরও সংবাদ
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব www.bangla24bdnews.com কর্তৃক সংরক্ষিত
Customized By NewsSmart