1. admin@bangla24bdnews.com : b24bdnews :
  2. robinmzamin@gmail.com : mehrab hossain provat : mehrab hossain provat
  3. maualh4013@gmail.com : md aual hosen : Md. Aual Hosen
  4. tanvirahmedtonmoy1987@gmail.com : shuvo khan : shuvo khan
সোমবার, ০৬ জুলাই ২০২০, ১০:১৭ অপরাহ্ন

‘জয় হউক মানবতার, জয় হউক মাদার অফ হিউমিনিটি শেখ হাসিনার’

মুহাম্মাদ মাসুম খান (বাংলা ২৪ বিডি নিউজ):
  • আপডেট সময় : মঙ্গলবার, ৭ এপ্রিল, ২০২০
  • ১৯২
এদেশে কিছু সুশীল, কিছু  মানবাধিকার নেতা  প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রশংসা করলে বলে সব খানে রাজনীতি টেনে আনেন কেন? কেউ বলে দল বাজ। কিন্তু আসলে তারা বাস্তববাদী নয় বরং  পরশ্রীকাতর। সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ট বাঙ্গালী জাতির জনক  বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান যেমন ছিলেন একজন অতুলনীয়, অনন্য এক নেতা, এক রাস্ট্রনায়ক। তার সুযোগ্য কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনাও ঠিক তার মতোই অনন্য। বরং কিছু কিছু ক্ষেত্রে বঙ্গবন্ধুর চেয়েও  বেশি দুরদর্শি।
শেখ হাসিনার বাংলাদেশ বললে অনেকেই একেবারে অন্ধ ভক্ত বলে সমালোচনা করেন। কিন্তু একবার ভেবে দেখুন বর্তমানে বাংলাদেশে শেখ হাসিনা ছাড়া আর কোন যোগ্য নেতা  আছেন কি? শেখ হাসিনা যেন শুধু  একজন নেতা নয়, একটা প্রতিষ্ঠান।  এদেশের কোন সিদ্ধান্তই শেখ হাসিনা ছাড়া কেউ নিতে পারে না। সব খানে তাকেই সব সিদ্ধান্ত নিতে  হয়। অকল্পনীয় বৈশ্বয়িক ভয়াবহ করোনা মহামারি সংক্রামন প্রতিরোধ করতে জন সমাগম ঠেকাতে মক্কা- মদিনাসহ  সারা মুসলিম জাহান  সকল মসজিদ, মন্দির, গীর্জাসহ সব উপাসনালয়ে আপাতত জন সমবেত হওয়া নিষিদ্ধ করলেন। সে প্রক্ষিতে বাংলাদেশে কি করা হবে সে সিদ্ধান্ত নিতে ধর্ম প্রতি মন্ত্রীল মাধ্যমে সকল আলেমদের মতামতের ভিত্তিতে গনতান্তিক সিদ্ধান্ত নেয়ার নির্দেশ দিলেন দূরদর্শি প্রধানমন্ত্রী। কিন্তু আলেম সমাজ কি করলেন?  সম্পুর্ন ধর্মান্ধ হয়ে মুসলিম জাহানের সিদ্ধান্ত ,মক্কা-মদিনা বন্ধের নজির, আজহার বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামিক স্কলারদের ফতোয়াকে উপেক্ষা করে মসজিদ খোলা রাখার সিদ্ধান্ত দিলেন। আলেমদের উপড় যে দায়িত্ব দেয়া হয়েছিল তারা কি সেই দায়িত্ব পালন করতে পারলেন? অথচ সেই আলেমদের কেউ কেউ  টিভিতে এসে বললেন, পত্রিকায় লিখলেন সংক্রামিত  মহামারির পরিপেক্ষিতে মসজিদে জামাত আদায় করা শরিয়তের লংঘন। অথচ  প্রধানমন্ত্রী তখন যদি আলেমদের মতামত উপেক্ষা করে  মসজিদে জামাত পড়া বন্ধের ঘোষনা দিতেন তাহলে দেখা যেত সারা দেশে রব উঠে যেত শেখ হাসিনা ইসলাম বিরোধি, তিনি মসজিদে যাওয়া বন্ধ করে দিয়েছেন। তাই তিনি কৌশলী হয়ে আলেমদের সিদ্ধান্তের উপড় ভিত্তি করে মসজিদ বন্ধ না করে অসুস্থদের মসজিদে যেতে না করলেন।উদ্দেশ্য ছিল সংক্রামনের সুযোগ যাতে কম থাকে। কিন্তু আলেমদের উচিত ছিল বাস্তবতার আলোকে সিদ্ধান্ত দেয়া। গ্রামে  মসজিদে মুসল্লীদের ঢল নামতে শুরু করল।
অথচ পাকিস্তানে মসজিদে জামাত থেকে করোনা সংক্রমনের কারনে ১৮ জন ইমামকে গ্রেফতার করা হয় জামাতে নামাজ পড়ানোর কারণে।ভারতের দিল্লীতে মসজিদে তাবলীগ জামাতে সমবেত মুসল্লী থেকে ৪৬০ জনের মধ্যে করোনা সনাক্ত হয়। আজকে বাংলাদেশে যদি মসজিদে জামাতের কারণে করোনা সংক্রমিত হয় সেই দায়ভারটা কে নিবে? তখন আবার দোষ প্রধানমন্ত্রীকেই দেয়া হবে। তাই এবার মমতাময়ী নেত্রী আর কোন আলেমদের মতামতের  আশায় বসে থাকলেন না। মহান আল্লাহ রহমতে ও নির্দেশে বাংলার মানুষের অবিসংবাদিত অভিভাবক প্রধানমন্ত্রী জননেত্রি শেখ একক ভাবেই সকল মসজিদে জামাত সীমিত রাখার ঘোষনা দিলেন। এখানেও তার অতুলনীয় দুরদর্শিতার পরিচয় দিলেন মসজিদে জামাত বন্ধের ঘোষনা না  দিয়ে দৈনিক পাচ ওয়াক্ত নামাজে ৫ জন এবং জুমার নামাজে ১০ জন মুসল্লী নিয়ে জামাত করার নির্দেশ দিলেন।
এবার আসুন গার্মেন্টস বন্ধের ব্যাপারে।এখানে প্রধানমন্ত্রী দায়িত্ব দিলেন সংশ্লিষ্ট মন্ত্রনালয়কে গার্মেন্টস মালিক সমিতির নেতাদের সাথে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত জানাতে। এখানেও একই অবস্থা সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে পারলেন না। গার্মেন্টস খোলা রাখার সিদ্ধান্ত নিলেন। দুরদর্শি প্রধানমন্ত্রী ২৬ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত সাধারন ছুটি দিলেন, পরবর্তীতে ৯,১১,১৪ এপ্রিল পর্যন্ত বর্ধিত করলেন। কিন্তু গার্মেন্টস মালিকেরা অর্থান্ধ হয়ে  ৪ তারিখের পর গার্মেন্টস খুললেন । শহরে গার্মেন্টস শ্রমিকদের আসার জনাকীর্ন দৃশ্য দেখে করোনা সংক্রমনেরর ভয়াবহতায় শিহরিত হয়ে উঠল ১৬ কোটি মানুষ। মানবতার নেত্রী মাদার অফ হিউমিনিটি প্রচন্ড রেগে গেলেন গার্মেন্টস মালিকদের প্রতি। এক মুহুর্ত বিলম্ব না করে সমস্ত গার্মেন্টস বন্ধের নির্দেশ দিলেন ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত।  শুধু তাই নয় এই ঘোষনা ও দিয়ে দিলেন কোন শ্রমিকের চাকুরি যাবে না।
এই হলো আমাদের প্রধানমন্ত্রী যিনি  অনেক মন্ত্রি এবং বুদ্ধিজীবিদের বিরোধিতা সত্বেও  জাতির পিতার  বহুল কাংখিত, প্রত্যাশিত জন্ম শত  বার্ষিকির  মাত্র এক দিন  আগে১৬ মার্চ  তারিখে  ঘোষনা  দিয়ে দিলেন সব অনুষ্ঠান, সমাবেশ, বন্ধ রাখার। যারা সমালোচনা করছিলেন বাবার জন্ম দিন পালনের জন্য এখনো শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলা রেখেছেন, তাদের সকল সমালোচনাকে মিথ্যা প্রমান করে দিলেন এক ঘোষনায়। কেউ কল্পনা ও করেন নি একক সিদ্ধান্তে নির্বাহী ক্ষমতাবলে এই সংকটময় সময়ে বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করে এমন  মহান মানবিকতা আর উদারতার পরিচয় দিবেন। তিনি তাই করলেন।
আমি বলতে চাচ্ছি গার্মেন্টস মালিক সমিতির নেতারা কেন জরুরী কাজের জন্য কিছু খোলা রেখে সব গার্মেন্টস বন্ধের সিদ্ধান্ত নিতে পারলেন না?কেন এই ব্যাপারে সিদ্ধান্ত প্রধান মন্ত্রীকেই নিতে হলো? প্রধানমন্ত্রী ৫ হাজার কোটি টাকার প্রণোদনা ঘোষনা করলেন গার্মেন্টস কর্মিদের বেতনের জন্য। তারপরেও গার্মেন্টস মালিক সমিতির নেতারা গার্মেন্টস বন্ধের সিদ্ধান্ত নিতে পারলেন না । তার মানেটা কি দাড়াল, সরকারি বেসরকারি সব কিছুতেই প্রধানমন্ত্রীর একক সিদ্ধান্ত না হলে জাতি সঠিক সিদ্ধান্ত পাচ্ছে না।  এভাবেই ৭০ বছর উর্ধ্ব একজন মহিয়সী নারী শেখ হাসিনা  মহান আল্লাহর রহমতে একাই যেন সব দেখছেন, দেশ চালাচ্ছেন অত্যন্ত সফলভাবে। আর এজন্যই বলা হয় শেখ হাসিনার বাংলাদেশ। আল্লাহ  মা-বাবা , ভাই আত্মীয়স্বজন সব হারিয়ে বাংলাদেশকে  পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ার এক মহান ব্রত নিয়ে  দিন রাত অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। ইতিমধ্যে তিনি করোনার মতো অনাকাংখিত অকল্পনীয় ভয়াবহ করোনা মহামারিতে জাতিকে সুরক্ষা করার জন্য অত্যন্ত সাহসিকতার সাথে সময়োচিত এবং কার্যকরি নির্দেশনাসমুহ প্রদান করেছেন। করোনার ক্ষতি থেকে জাতিকে রক্ষার জন্য ৭২ হাজার ৭৫০ কোটি টাকার বিশেষ প্রণোদনার ঘোষনা করেছেন। ২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা দিবসে জাতিকে করোনার বিরুদ্ধে ঘরে থেকে ঘরে ঘরে দূর্গ গড়ে তোলার আহবান করেছেন। মহান সৃস্টিকর্তা রাব্বুল আলামীন বাংলার মানুষের আশা আকাংখার প্রতিক জনবন্ধু  জননেত্রি  শেখ হাসিনাকে নেক হায়াত দান করুন। সঠিক সময়ে সঠিক সিদ্ধান্ত নেয়ার তৌফিক দান করুন। ভয়াবহ অদৃশ্য শক্তি করোনা মহামারির  বিরুদ্ধে এই নজিবিহীন সংগ্রামে মানবতার জয় হবেই ইনশাল্লাহ।
মুহাম্মাদ মাসুম খান
masumkhanngsc@gmailr

ফেসবুকে আমরা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরও সংবাদ
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব www.bangla24bdnews.com কর্তৃক সংরক্ষিত
Customized By NewsSmart