1. admin@bangla24bdnews.com : b24bdnews :
  2. robinmzamin@gmail.com : mehrab hossain provat : mehrab hossain provat
  3. maualh4013@gmail.com : md aual hosen : Md. Aual Hosen
  4. tanvirahmedtonmoy1987@gmail.com : shuvo khan : shuvo khan
শনিবার, ১৬ জানুয়ারী ২০২১, ০৩:২২ অপরাহ্ন
সদ্য সংবাদ
মোংলা পোর্ট পৌরসভায় মেয়রসহ ১৩ কাউন্সিলর প্রার্থীর ভোট বর্জন নড়াইল ও কালিয়া পৌর নির্বাচনে আ’লীগের দুই বিদ্রোহী প্রার্থীকে বহিষ্কার বগুড়ায় টিভি দেখতে না দেয়ায় স্কুল ছাত্রীর আত্মহত্যা ঝালকাঠিতে একইভাবে বাবা-ভাইয়ের পর খুন হলেন রুবেল এলজিইডির প্রধান প্রকৌশলীর নড়াইল পরিদর্শন করোনায় সারাদেশে ২৪ ঘন্টায় আরও ২৫ জনের মৃত্যু নড়াইলে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে বিএনসিসির নানা কর্মসূচি মুক্তিযোদ্ধা সনদ বাতিল ৫২ জনের তালিকা আগামী ২৬ মার্চ চূড়ান্ত তালিকা: মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী সর্বোচ্চ আত্মত্যাগের বিনিময়ে হলেও অর্জিত স্বাধীনতাকে সমুন্নত আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

ডোপ টেস্টে ৪ পুলিশের শরীরে মিলল মাদক, প্রত্যাহার

রাজশাহী (বাংলা ২৪ বিডি নিউজ):
  • আপডেট সময় : বৃহস্পতিবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০২০
  • ১৪৯
ডোপ টেস্টে ৪ পুলিশের শরীরে মিলল মাদক, প্রত্যাহার

ডোপ টেস্টে রাজশাহী জেলা পুলিশের চার সদস্যের মাদক সেবনের প্রমাণ মিলেছে। ডোপ টেস্টের প্রতিবেদন পজিটিভ আসার পর বিভাগীয় ব্যবস্থার অংশ হিসেবে তাদের দায়িত্ব থেকে প্রত্যাহার করে পুলিশ লাইনে সংযুক্ত (ক্লোজড) করা হয়েছে। এ চারজনই জেলা পুলিশের বিভিন্ন ইউনিটে কনস্টেবল পদে কর্মরত ছিলেন।

রাজশাহী জেলার অ্যাডিশনাল এসপি ইফতেখায়ের আলম এ তথ্য জানান।

তিনি আরো জানান, গত সেপ্টেম্বরে রাজশাহী জেলা পুলিশে সন্দেহভাজন মাদকাসক্ত পুলিশ সদস্যদের ডোপ টেস্ট শুরু হয়। এর অংশ হিসেবে ৭ সন্দেহভাজনের ডোপ টেস্ট করার পর চারজনকে শনাক্ত করা হয়। এই চারজনই বিভিন্ন ইউনিটে কর্মরত পুলিশ কনস্টেবল। ডোপ টেস্টে মাদক গ্রহণের বিষয়টি নিশ্চিত হওয়ার পর সম্প্রতি সাময়িক বরখাস্তসহ তাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা করা হয়। গত রোববার জেলা পুলিশের বিভিন্ন ইউনিটের আরো আট পুলিশ সদস্যের ডোপ টেস্ট করা হয়েছে। আগামী কয়েক দিনের মধ্যে সেসব ফলাফলও ঢাকা থেকে রাজশাহীতে এসে পৌঁছাবে।

অ্যাডিশনাল এসপি ইফতেখায়ের আলম বলেন, গণহারে সবার ডোপ টেস্ট করা হচ্ছে না। শুধু যারা সন্দেহভাজন তাদেরই করা হচ্ছে। মুখ, চোখ ও ঠোট দেখেও অনেক সময় সন্দেহভাজন মাদকাসক্তদের প্রাথমিকভাবে শনাক্ত করা সম্ভব। ডোপ টেস্টের সময় তাদের এসব লক্ষণও দেখা হচ্ছে।

সীমান্তবর্তী এলাকা হওয়ায় দেশের মধ্যে রাজশাহীর বিভিন্ন থানা, ফাঁড়ি ও বিভিন্ন ইউনিটে কর্মরত পুলিশ সদস্যদের মাদকাসক্ত হওয়ার ঝুঁকি বেশি। রাজশাহী জেলায় পুলিশ সদস্যদের মাঝে মাদকাসক্তির হার অধিক বিবেচনায় তাদের ডোপ টেস্ট শুরু হয়েছে। গত রোববার ডোপ টেস্ট করা আটজনের মধ্যে এসআই, এএসআই ও কনস্টেবল রয়েছেন।

আগামী কয়েক দিনের মধ্যে আরো কিছু সন্দেহভাজন পুলিশ সদস্যের ডোপ টেস্ট হবে। রাজশাহী পুলিশ হাসপাতালের একজন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের নেতৃত্বে ডোপ টেস্ট কমিটি করা হয়েছে। তবে বিশেষজ্ঞ কমিটি প্রথমে ফলাফল ঢাকায় পুলিশ সদর দফতরে পাঠিয়ে থাকে। সেখান থেকে সংশ্লিষ্ট জেলা পুলিশকে ফলাফল জানানো হচ্ছে।

ফেসবুকে আমরা

এ বিভাগের আরও সংবাদ
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব www.bangla24bdnews.com কর্তৃক সংরক্ষিত
Customized By NewsSmart