1. admin@bangla24bdnews.com : b24bdnews :
  2. robinmzamin@gmail.com : mehrab hossain provat : mehrab hossain provat
  3. maualh4013@gmail.com : md aual hosen : Md. Aual Hosen
  4. tanvirahmedtonmoy1987@gmail.com : shuvo khan : shuvo khan
বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ০৫:৩৯ অপরাহ্ন

বিএনপির কর্মী মনে করে ডিএসবি সদস্যকে পেটালেন ওসি

স্টাফ রিপোর্টার (বাংলা ২৪ বিডি নিউজ):
  • আপডেট সময় : বৃহস্পতিবার, ১২ ডিসেম্বর, ২০১৯
  • ৩৬৯

বিএনপির কর্মী মনে করে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের (ডিএসবি) এক কনস্টেবলকে রাস্তায় পেটালেন মৌলভীবাজার মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আলমগীর হোসেন। মারধরের শিকার ওই ডিএসবি সদস্যের নাম আবুল বাশার।

বৃহস্পতিবার (১২ ডিসেম্বর) বেলা ১১টার দিকে মৌলভীবাজার চৌমুহনায় এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন খারিজের প্রতিবাদে ও তার মুক্তির দাবিতে চৌমুহনা থেকে সকাল ১০টায় বিএনপির মিছিল হওয়ার কথা ছিল। সাড়ে ১০টার দিকে দায়িত্ব পালন করতে চৌমুহনা এলাকায় আসেন ডিএসবির সদস্য আবুল বাশার। এসময় মডেল থানার এসআই তাপসের নেতৃত্বে একদল পুলিশ চৌমুহনায় দায়িত্ব পালন করছিলেন।

বেলা ১১টার দিকে বিএনপির ১৫-২০ জন নেতাকর্মী রাস্তায় জড়ো হয়। সেখানে দায়িত্ব পালন করছিলেন আবুল বাশার। এসময়ই ঘটে যায় অনাকাঙিক্ষত ঘটনাটি। মডেল থানার ওসি আলমগীর হোসেন ডিএসবির সদস্য আবুল বাশারকে পেছন দিক থেকে এসে বিএনপির কর্মী বলে পেটাতে থাকেন। এসময় তিনি নিজেকে ডিএসবির সদস্যকে দাবি করলেও আলমগীর হোসেন থামেননি। তিনি বাশারের মাথায় আঘাত করেন।

এসময় মডেল থানার এসআই তাপস ডিএসবি সদস্য বাশারকে উদ্দেশ করে বলেন, ‘পুলিশের লোক হলে কী হবে? ডিএসবির লোক কিছু করতে পারবে না। ডিএসবি অফিস একটি বাজে অফিস।’

এ বিষয়ে ডিএসবির সদস্য আবুল বাশার বাংলা২৪ বিডি নিউজকে বলেন, ‘সকালে আমি অফিসে আসার পর পুলিশ সুপারের নির্দেশে ডিআইও-১ আবু তাহেরের সঙ্গে গোয়েন্দা তথ্য সংগ্রহ ও ছবি তুলতে চৌমুহনা পয়েন্টে যাই। আমি যখন ছবি তুলতে যাই, তখন ওসি আচমকা পেছন থেকে এসে ড্রেস পরিহিত অবস্থায়ই আমাকে আক্রমণ করেন। তবে আমি নিজেকে ডিএসবি সদস্য বলে পরিচয় দিলে তিনি থেমে যান।’

তবে ছত্রভঙ্গ করতে ঘটনাটি ঘটেছিল বলে বাংলা২৪ বিডি নিউজের কাছে স্বীকার করেছেন ওসি আলমগীর হোসেন। পরে অনুতপ্ত হয়ে তিনি বলেন, বিষয়টি নিয়ে কথা বলা লজ্জার। যেহেতু গোয়েন্দা সংস্থার বাশারের আলাদা ড্রেস ছিল না তাই ছত্রভঙ্গ করার সময়ে বিএনপির কর্মী মনে হয়েছে। পরে পরিচয় পেয়ে আমরা বিষয়টা মিটিয়ে নিয়েছি। তিনি বলেন, একটি ভুল বোঝাবুঝি হয়েছে। বিষয়টি যত প্রকাশ পাবে তত আমাদের জন্য লজ্জার।

ফেসবুকে আমরা

এ বিভাগের আরও সংবাদ
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব www.bangla24bdnews.com কর্তৃক সংরক্ষিত
Customized By NewsSmart